রাষ্ট্রীয় বাহিনী দিয়ে নির্যাতন চালাচ্ছে সরকার: ফখরুল

0
40
BNP 2
আন্তর্জাতিক গুম প্রতিরোধ দিবস উপলক্ষে মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীতে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের মানববন্ধনে ফখরুল ও অন্যান্য দলীয় নেতা।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করে বলেছেন, বিরোধী মত দমন করতেই রাষ্ট্রীয় বাহিনী দিয়ে সরকার সাধারণ মানুষের ওপর অত্যাচার-নির্যাতন চালাচ্ছে।

BNP
আন্তর্জাতিক গুম প্রতিরোধ দিবস উপলক্ষে মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীতে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের মানববন্ধন।

আন্তর্জাতিক গুম প্রতিরোধ দিবস উপলক্ষে মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীতে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি একথা বলেন।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে- একথা উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, গুম-খুনের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলে এই ফ্যাসিস্ট সরকারের পতন ঘটাতে হবে।

ফখরুল দাবি করেন, কেবলমাত্র ঢাকায় বিএনপি, ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দলের ২৪ জন গুম-খুন হয়েছেন। এ ছাড়া জামায়াত-শিবিরসহ অন্যান্য দলের অনেকে গুম হয়েছেন।

বিএনপির ঢাকা মহানগর কমিটির আহ্বায়ক মির্জা আব্বাস বলেন, আমরা জানতে পেরেছি আরও নাকি তালিকা হচ্ছে। আরও হত্যা, গুম, খুন হবে। এ জন্য তিনি নেতা-কর্মীদের সাবধানতার পাশাপাশি প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানান

মানববন্ধনে এসেছিল বিএনপির নিখোঁজ নেতা ইলিয়াস আলীর ছেলে অর্ণব। অর্ণব বলেন, ‘২৮ মাস হলেও বাবার কোনো খোঁজ পাচ্ছি না আমরা। গুম করে রাজনীতি করা একটি স্বাধীন দেশে চলে না। আমরা বাবাকে ফিরে পেতে চাই।

নিখোঁজ ছাত্রদল নেতা নিজামউদ্দিন মুন্নার বাবা শামসুদ্দিন ছেলের হদিস জানতে আকুতি জানিয়ে বলেন,ছেলেকে যদি না দেন, কোথায় পুঁতে রেখেছেন চিনিয়ে দেন। তাহলে কবর হিসেবে সেখানেই জিয়ারত করব।’।

মানববন্ধনে আরও এসেছিলেন নিখোঁজ বিএনপির নেতা সাজেদুল ইসলাম সুমনের বোন মারুফা ইসলাম, ছাত্রদলের নেতা জহিরুল ইসলামের মা হোসনে আরা বেগম, স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা আদনানের বোন ফারহানা সুলতানা প্রমুখ। প্রত্যেকেই নিজেদের কষ্টের কথা জানান।

সকাল ১১টায় বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনের রাস্তায় এই মানববন্ধন কর্মসূচি শুরু হওয়ার কথা ছিল। এর অনেক আগেই নয়া পল্টনের আশেপাশের এলাকায় জনতার ঢল নামে।

কাকরাইলের নাইটিঙ্গেল রেস্তোরাঁর মোড় থেকে আরামবাগ সড়কের শেষ প্রান্ত নটরডেম কলেজ পর্যন্ত সড়কের দুই পাশে ২০ দলের কয়েক হাজার নেতা-কর্মী ব্যানার-ফেস্টুন হাতে বেলা ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত এই মানববন্ধনে অংশ নেন।

মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য লে. জে. (অব.) মাহবুবুর রহমান, এম কে আনোয়ার, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, সেলিমা রহমান, যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী আহমেদ, প্রচার সম্পাদক জয়নাল আবদিন ফারুক, শিক্ষা সম্পাদক খায়রুল কবীর খোকনসহ শরিক দলের শীর্ষ নেতারা।

প্রসঙ্গত, জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ ঘোষিত ‘আন্তর্জাতিক গুম প্রতিরোধ’ দিবসের দিন গত ৩০ অগাস্ট শনিবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ২০ দলীয় জোটের এ কর্মসূচি পালনের কথা ছিল। পুলিশ অনুমতি না দেওয়ায় সেদিন কর্মসূচি পালিত হয়নি।

বিশ্বব্যাপী গুম-অপহরণের প্রতিবাদে ও সচেতনতা তৈরিতে জাতিসংঘ ২০১১ সাল থেকে প্রতি বছর ৩০ অগাস্ট ‘ইন্টারন্যাশনাল ডে ফর ভিকটিমস অব এনফোর্সড ডিসঅ্যাপিয়ারেন্স’ পালন করে আসছে।

 

এমআই/