৮০০ বছর পর খুলেছে নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়

0
48
nalanda university
ভারতের সুপ্রাচীন নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়- ফাইল ছবি
nalanda university
ভারতের সুপ্রাচীন নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়- ফাইল ছবি

ভারতের সুপ্রাচীন নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ে ৮০০ বছরেরও বেশি সময় পর আজ সোমবার  থেকে আবার ক্লাস শুরু হয়েছে।

৪১৩ খ্রীষ্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত এই বিশ্ববিদ্যালয় গোটা এশিয়াতেই এককালে ছিল সবচেয়ে সুপরিচিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান – কিন্তু দ্বাদশ শতাব্দীতে ধ্বংস হয়ে যাওয়ার পর তা ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়।

ভারতীয় পার্লামেন্ট ২০১০ সালে একটি বিল পাস করে সেই নালন্দাকেই আবার পুনরুজ্জীবিত করেছে – প্রতিষ্ঠানের আচার্য হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন।

বার্তাসংস্থা বিবিসি ও টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, ১৫ জন ছাত্রছাত্রী আর ১১ জন শিক্ষককে নিয়েই যাত্রা শুরু করেছে নতুন নালন্দা।

নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য অমর্ত্য সেন জানান, আজকের নালন্দাও এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে নতুন সম্পর্কের সূচনা করতে পারে। তা ছাড়া নালন্দা ভারতের যে রাজ্যে অবস্থিত, সেই বিহারে নালন্দা একটা পরিবর্তনের, বিহারের উন্নয়নের প্রতীক হয়ে উঠতে পারে।

বিহারের রাজধানী থেকে প্রায় নব্বই কিলোমিটার দূরে নালন্দার প্রত্নতাত্ত্বিক ধ্বংসাবশেষ।

দ্বাদশ শতাব্দীতে তুর্কী সেনাবাহিনীর হাতে ধ্বংস হয়ে যাওয়ার আগে এই নালন্দা ছিল এশিয়া মহাদেশে সবচেয়ে বিখ্যাত জ্ঞানচর্চার কেন্দ্র – সুদূর চীন, জাপান, কোরিয়া, মঙ্গোলিয়া থেকেও ছাত্ররা এখানে পড়তে আসতেন।

বিশ্বের প্রথম আবাসিক বিশ্ববিদ্যালয় এটি, আর ইতালির বোলোনিয়াতে যখন ইউরোপের প্রথম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে, নালন্দার বয়স তখনই সাড়ে ছশো বছর।

কিন্তু গত আটশো বছরেরও বেশি সময় ধরে নালন্দা ছিল শুধুই এক খন্ডহর। ২০০৬ সালে নালন্দাকে আবার পুনর্জন্ম দেওয়ার প্রস্তাব দেন ভারতের তদানীন্তন রাষ্ট্রপতি এপিজে আবদুল কালাম।

তার বছরচারেক বাদে ভারতীয় পার্লামেন্টে পাস হয় নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয় বিল – যাতে প্রস্তাব রাখা হয়েছিল নতুন আকারে নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করে তাতে পড়ানো হবে ভাষাতত্ত্ব, ইতিহাস, পররাষ্ট্রনীতি, পরিবেশবিদ্যা বা বৌদ্ধ দর্শনের মতো নির্বাচিত কয়েকটি বিষয়।