তুং হাই নিটিংয়ের ভালো-মন্দ

0
93
tung-hai-knitting
তুং হাই নিটিংয়ের ওয়েবসাইটের প্রচ্ছদ পাতার একাংশ
tung-hai-knitting
তুং হাই নিটিংয়ের ওয়েবসাইটের প্রচ্ছদ পাতার একাংশ

আগামীকাল সোমবার পুঁজিবাজারে অভিষেক ঘটছে তুং হাই নিটিং অ্যান্ড ডায়িং লিমিটেডের। দেশের দুই স্টক এক্সচেঞ্জে একযোগে কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন শুরু হবে।এ নিয়ে এক সপ্তাহে বস্ত্র খাতের দুটি কোম্পানির অভিষেক বাজারে।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার ফার ইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডায়িং লিমিটেডের লেনদেন শুরু হয়।প্রথম দিনে ভালোই সাড়া পায় কোম্পানিটি।শেয়ারের দাম প্রাথমিক গণ প্রস্তাবের (আইপিও) অফার প্রাইসের চেয়ে প্রায় ৭০ শতাংশ বেড়ে যায়।কিন্তু রোববার দ্বিতীয় দিনে এসে হোঁচট খায় এর শেয়ার। দাম কমে যায় প্রায় ৯ শতাংশ।আর এ কারণে তুং হাই নিটিং নিয়ে বিনিয়োগকারীদের উদ্বেগ ও আগ্রহ অন্য অনেক কোম্পানির চেয়ে বেশি।

তুং হাই নিটিং প্রচ্ছন্ন রপ্তানিমুখী একটি প্রতিষ্ঠান।প্রতিষ্ঠানটির দুটি ইউনিট রয়েছে।একটি ইউনিটে নিট পোশাকের সুতা রং, ব্লিচিং ও ফিনিশিং করা হয়। অন্য ইউনিটে উৎপাদন করা হয় সোয়েটার।

কোম্পানির অনুমোদিত মূলধন ১০০ কোটি টাকা।আইপিওর আগে এর পরিশোধিত মূলধন ছিল ৪৫ কোটি ১৩ লাখ টাকা। আইপিওতে কোম্পানিটি ৩৫ কোটি টাকা মূলধন সংগ্রহ করেছে। ফলে আইপিও পরবর্তী মূলধন দাঁড়িয়েছে ৮০ কোটি ১৩ লাখ টাকা।

বর্তমানে তুং হাই নিটিংয়ের শেয়ার সংখ্যা ৮ কোটি। এর মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে আছে ৩ কোটি ৫০ লাখ শেয়ার।

আইপিওতে সংগৃহীত মূলধনের প্রায় ৪৬ ভাগ কোম্পানির দীর্ঘ মেয়াদী ঋণ পরিশোধে যাবে; যার পরিমাণ প্রায় ১৬ কোটি টাকা। বাকী অর্থের মধ্যে ৩৩ ভাগ ক্যাপিটাল ইনভেস্টমেন্ট এবং ১৫ ভাগ চলতি মূলধন হিসেবে ব্যবহৃত হবে।

প্রসপেক্টাস অনুসারে ৩১ ডিসেম্বর ২০১৩ তারিখে সমাপ্ত হিসাব বছরে শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস ছিল ১ টাকা ৩৯ পয়সা। আর শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য বা এনএভি ছিল ১৫ টাকা ১১ পয়সা।

গাজীপুরের জিরানি এলাকায় অবস্থিত এ কোম্পানি ২০০৫ সালে বাণিজ্যক উৎপাদন শুরু করে। ২০১১ সালে এটি পাবলিক লিমিটেড কোম্পানিতে রূপান্তরিত হয়।

শুরুতে কোম্পানির উৎপাদন ক্ষমতা ছিল প্রতিদিন ২০ হাজার পাউন্ড সুতা রং করা। ওই সময় দিনে সর্বোচ্চ ১২ হাজার পিস সোয়েটার উৎপাদনের ক্ষমতা ছিল এ কোম্পানির।

মাত্র ৫ লাখ টাকার পরিশোধিত মূলধন নিয়ে যাত্রা শুরু হয়েছিল তুং হাই নিটিংয়ের। ২০১১ সালের আগ পর্যন্ত বিভিন্ন ধাপে মূলধন বেড়ে ৯ কোটি ৩০ লাখ টাকা হয়।২০১১ সালে পরিশোধিত মূলধন বাড়িয়ে ৪৫ কোটি ১৩ লাখ টাকা করা হয়। এক লাফে কোম্পানির মূলধন বেড়ে যায় ৩৫ কোটি ৮৩ লাখ টাকা বা প্রায় ৩৮৫ শতাংশ।

সোমবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) তুং হাই নিটিংয়ের সর্বশেষ প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ) আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়।এতে দেখা যায় আইপিও পূর্ববর্তী শেয়ার সংখ্যা বিবেচনায় কোম্পানির ইপিএস ২৭ পয়সা। আর আইপিও পরবর্তী শেয়ার সংখ্যায় ইপিএস মাত্র ১৫ পয়সা।

কোম্পানির মোট আয়ের প্রায় ৭৪ শতাংশ আসে ডায়িং ইউনিট থেকে। আর সোয়েটার বুনন ইউনিট থেকে আসে বাকী ২৬ শতাংশ।

সোমবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) তুং হাই নিটিংয়ের সর্বশেষ প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ) আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। এতে দেখা যায় আইপিও পূর্ববর্তী শেয়ার সংখ্যা বিবেচনায় কোম্পানির ইপিএস ২৭ পয়সা। আর আইপিও পরবর্তী শেয়ার সংখ্যায় ইপিএস মাত্র ১৫ পয়সা।

কোম্পানির মোট আয়ের প্রায় ৭৪ শতাংশ আসে ডায়িং ইউনিট থেকে। আর সোয়েটার বুনন ইউনিট থেকে আসে বাকী ২৬ শতাংশ।

ডায়িংয়ের ক্ষেত্রে কোম্পানির প্রধান প্রতিযোগীরা হচ্ছে- ডং বেং ডায়িং, মিশুন নিটিং, এবিসি নিটিং অ্যান্ড ডায়িং, ৪এ ইয়ার্ন ডায়িং এবং ফাইবার শাইন।