কঠোর আন্দোলনের হুমকি সাংবাদিকদের

0
37
okhil poddar
পাা্ড
okhil poddar
সাংবাদিক অখিল পোদ্দারের ওপর পুলিশি হামলার ঘটনায় অায়োজিত প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখছেন বক্তারা। ছবিটি রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে থেকে তুলেছেন আলোকচিত্রী খালেদুল কবির নয়ন।

সাংবাদিক অখিল পোদ্দারের ওপর হামলার ঘটনায় অভিযুক্ত পুলিশকে আইনের আওতায় এনে বিচার করা না হলে কঠোর আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন সাংবাদিক নেতারা।

রোববার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (ক্র্যাব) আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় তারা এ হুমকি দেন।

প্রতিবাদ সভায় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীকে মিথ্যুক আখ্যা দিয়ে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস খান বলেন, ব্যর্থ স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর অবিলম্বে পদত্যাগ চাই। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর চরম অবনতি, তাদের হাতে সাধারণ মানুষের প্রাণহানি ও নির্যাতনের বিভিন্ন সংবাদ গণমাধ্যমে উঠে আসলেও তিনি বলেছেন আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভাল আছে।

সাংবাদিক সমাজ সত্য প্রকাশ করার কারণেই তারা পুলিশের বড় শত্রু উল্লেখ করে তিনি বলেন,  সাংবাদিক সমাজ সত্যের পক্ষে কথা বলে, রাজনীতিবিদদের দুর্নীতি, ডাক্তারদের নেতিবাচক সংবাদ প্রকাশের কারণেই তারা পুলিশের শত্রু।

তিনি বলেন, এখন শুধু পুলিশ নয়, স্বয়ং রাষ্ট্রও সাংবাদিক সমাজের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে। আর সেজন্যই গণমাধ্যমের কণ্ঠরোধ করতেই সম্প্রচার নীতিমালা দেওয়া হয়েছে।

সাগর-রুনির হত্যাকারীদের চিহ্নিত করার পরও কোনো এক অদৃশ্য কারণে তাদের গ্রেফতার করা হচ্ছে না বলেও অভিযোগ করেন ডিআরইউর সাধারণ সম্পাদক।

পুলিশের আইজি, ডিএমপিকে উদ্দেশ্য করে ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আকতারুজ্জামান লাবলু বলেন, সাংবাদিক অখিল পোদ্দারের উপর নির্যাতনের সঠিক তদন্ত করে দূবৃত্ত পুলিশের বিচার করুন। আর না হয় এর বিচারের দাবিতে কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে। তখন সাংবাদিক সমাজকে নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন হবে।

এ সময় সোমবার আইজি বরাবর স্মারকলিপি প্রধান ও মঙ্গলবার প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হবে বলে জানান তিনি।

পুলিশের আইজিকে উদ্দেশ্য করে ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি পারভেজ খান বলেন, পর্যায়ক্রমে এমন কর্মসূচি দিতে হবে যাতে পুলিশ আর কখনও সাংবাদিকদের ওপর হামলা না করতে পারে। এই জন্য সাংবাদিকদের এক কাতারে আসতে হবে।

অখিল পোদ্দারকে নির্যাতনকারীকে দূবৃত্ত পুলিশের হাতকড়া না পরানো পর্যন্ত আমরা রাজপথে থাকবো- হুমকি দিয়ে তিনি বলেন, এসব মানববন্ধন আর বিক্ষোভ সমাবেশ করে কিছুই হবে না। কঠোর কর্মসূচি দিতে হবে। যাতে আর কোনো দিন পুলিশ সাংবাদিকদের গায়ে হাত তুলতে না পারে।

অনলাইন জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সিনিয়র সহসভাপতি মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, ক্র্যাবের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক কামরুজ্জামান খান, ডিইউজের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গির আলম প্রধান, সাংবাদিক সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক নুরুল হক খোকনসহ একুশে টেলিভিশনের রিপোর্টাররা উপস্থিত ছিলেন।

জেইউ/