বাড়ি ভাড়া আইন বাস্তবায়নে মোবাইল কোর্ট চালুর দাবি

0
62
Bulding
ফাইল ছবি
Bulding
ফাইল ছবি

বাড়ি ভাড়া আইন বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে মোবাইল কোর্ট চালু করার দাবি জানিয়েছে ভাড়াটিয়া পরিষদ।

শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সংগঠনটির এক মানববন্ধনে এ দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধনে ১৯৯১ সালের বাড়ি ভাড়া নিয়ন্ত্রণ আইনের প্রয়োজনীয় সংস্কার ও বাস্তবায়নেরও দাবি করা হয়।

সংগঠনের সভাপতি বাহারানে সুলতান বাহার বলেন, রাজধানীতে দুই কোটির অধিক মানুষ বসবাস করে, এদের ৯৫ ভাগ মানুষই হত-দরিদ্র ও নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের। তারা দিন এনে দিন খেতে কষ্ট হয়। অথচ ঢাকার বাড়ির মালিকরা বছরে ২/৩বার বাড়ি ভাড়া বাড়ায়।

তিনি বলেন, সরকারীভাবে বিদ্যুৎ, গ্যাস ও পানির বিল বাড়ালে বাড়ির মালিকরা যৌক্তিকভাবে বর্ধিত সেই টাকাটা ভাড়াটিয়ার উপর চাপিয়ে দেয়। যা অত্যন্ত অমানবিক।

বাড়ি ভাড়া বাড়ানোর প্রতিবাদে একদিন সকল ভাড়াটিয়ারা রাস্তায় নেমে আসবে, সেদিন মালিক কিংবা সরকার কেউই নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে না বলে সরকারকে হুঁশিয়ারী দেন ভাড়াটিয়া পরিষদের সভাপতি।

বাড়ির মালিকদের সমালোচনা করে তিনি বলেন, আমরা নিম্ন আয়ের মানুষ, বাড়ির মালিকরা আমাদের বাড়ি ভাড়া দিতে রাজী হয় না। ভাড়া দিলেও তারা আমাদের থেকে অধিক ভাড়া এবং ২/৩ মাসের ভাড়া অগ্রিম নিয়ে যায়।

ভাড়াটিয়ার নিকট থেকে এক মাসের বেশি অগ্রিম ভাড়া নেওয়া যাবে না এমন দাবি জানিয়ে বাহার বলেন, আইন বহির্ভূতভাবে বাসা ও দোকান ভাড়া বাড়ানো চলবে না। যেসব মালিক আইন অমান্য করবে তাদের বিরুদ্ধে ফৌজদারী আইনে বিচার করতে হবে।

বাহার বলেন, পাকা রশিদ ছাড়া অনেক বাড়ির মালিক ভাড়া আদায় করে। এই ধরনের প্রবণাতা বন্ধ করতে হবে। পাকা রশিদ ছাড়া কোনো ধরনের বাড়ি ভাড়া আদায় করা যাবে না

এ সময় ভাড়াটিয়াদেরকে বাড়ির মালিকদের হয়রানী ও নির‌্যাতনের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য সরকারের কাছে আহ্বান জানান তিনি।

বাহারানে সুলতান বাহারের আরও উপস্থিত ছিলেন, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক জান্নাত ফাতেমা, মো. মোস্তফা, মাহাতাব উদ্দিন শহীদ, জামাল সিকদার, আবুর কালাম আজাদ আলামিন প্রমূখ।

জেইউ/এস রহমান/