‘খাসিয়াদের উচ্ছেদ করে চা বাগানের গাছ কাটা হয়েছে’

0
47
tea garden
ফাইল ছবি
tea garden
ফাইল ছবি

অসাধু সরকারি আমলাদের পৃষ্ঠপোষকতায় সিলেটের নাহার চা বাগানে অদিবাসী খাসিয়াদের উচ্ছেদ করে বাগানের গাছ কাটা হয়েছে। এ অঞ্চলে সরকার থেকে ইজারা নিয়ে চা বাগান মালিকরা আমলাদের সহায়তায় বন ধ্বংস করছে বলে অভিযোগ করেছে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন-বাপা।

শুক্রবার সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) মিলনায়তনে ‘শ্রীমঙ্গলের আসলমপুঞ্জির (নাহার-১) আদিবাসীদের ওপর হামলা, মিথ্যা মামলা, উচ্ছেদ চক্রান্ত ও বন ধ্বংসের প্রতিবাদ’ শীর্ষক এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটির নেতারা এ অভিযোগ করেন।

সংগঠনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও আদিবাসী সংগঠনের নেতা শরীফ জামিল বলেন, ‘আমাদের দেশে বনভূমি রয়েছে মোট ভূমির মাত্র ৬ থেকে ১০ ভাগ। কিন্তু একটি দেশের প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষার জন্য ২০ থেকে ২৫ ভাগ বনভূমি প্রয়োজন। আমরা সম্প্রতি দেখতে পেয়েছি সিলেটের বিভিন্ন অঞ্চলে সরকার থেকে ইজারা নিয়ে চা বাগান মালিকরা বাগানের বড় বড় গাছ কাটে ধ্বংস করছে।’

তিনি অভিযোগ করে বলেন, সম্প্রতি নাহার চা বাগানের মালিক সরকার থেকে ৪ হাজার গাছ কাটার অনুমতি নিয়ে গত ঈদের আগেই গাছ কাটা শুরু করে। আমরা বিষয়টি জানার পর সেখানে মানববন্ধনসহ এর তীব্র প্রতিবাদ করেছি। পরে আদালতের স্মরণাপন্ন হলে আদালত বিষয়টি বন্ধের নির্দেশ দেন। কিন্তু এর আগে বাগানটির প্রায় দেশ হাজার গাছ কেটে ফেলা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সম্প্রতি নাহার চা বাগান ম্যানেজারের নেতৃত্বে একদন সন্ত্রাসী বাহিনী বাগানের ভেতরে বসবাসরত খাসিয়া সম্প্রদায়কে উচ্ছেদ করার জন্য অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় স্থানীয় এক সন্ত্রাসী গর্তে পড়ে আহত হয়ে তিনদিন পর হাসপাতালে নিহত হয়। এ ঘটনায় খাসিয়াদের আসামী করে একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। একই সঙ্গে খাসিয়ারাও তাদের ঘরবাড়িতে হামলার প্রতিবাদে একটি মামলা করে। কিন্তু প্রশাসন খাসিয়াদের মামলাটি আমলে নিচ্ছে না।

শরীফ জামিল বলেন, ‘সন্ত্রাসীরা মামলায় উচ্চ আদালত থেকে অন্তর্বর্তীকালীন জামিন নিয়ে নিম্ন আদালতে হাজির হলে আদালত তাদেরকে প্রথমে জামিন দেয়। কিন্তু কিছুক্ষণ পর  তাদেরকে ডেকে নিয়ে জেলহাজাতে প্রেরণ করে।

এ অবস্থায় খাসিয়াদের অনুপস্থিতিতে সরকারি লোকের পৃষ্ঠ পোষকতায় চা বাগানের মালিকরা বনের গাছগুলো নির্বিচারে কাটা শুরু করেছে বলেও অভিযোগ করেন পরিবেশ কর্মী শরিফ জামিল।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মতিনের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট কলামিষ্ট আবুল মকছুদ, হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের মহাসচিব অ্যাডভোকেট রানাদাস, অভিনেতা মামুনুর রশিদ, পরিবেশ কর্মী সঞ্জিত রায় প্রমুখ।

এইচকেবি/এস রহমান