‘একজন র‌্যাব, একজন সাংবাদিক হবে; দোয়া করবেন’

0
30
DMC Bar Child3
হারানো নবজাতককে ফিরে পেয়ে আনন্দিত রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বাসিন্দা রুনা আক্তার ও তার স্বামী। গত ১৯ আগস্ট যমজ শিশুর জন্মের পর ২১ আগস্ট সকালে একটি শিশু চুরি হয়। ছবি: খালেদুল কবির নয়ন

যমজ ২ ছেলের একজনকে সাংবাদিক অপরজনকে র‍্যাব বানানোর আশা প্রকাশ করেছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল থেকে চুরি যাওয়া ছেলের বাবা কাওসার হোসেন।

DMC Bar Child3
হারানো নবজাতককে ফিরে পেয়ে আনন্দিত রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বাসিন্দা রুনা আক্তার ও তার স্বামী। গত ১৯ আগস্ট যমজ শিশুর জন্মের পর ২১ আগস্ট সকালে একটি শিশু চুরি হয়। ছবি: খালেদুল কবির নয়ন

চুরি হওয়া নবজাতককে উদ্ধারের পর বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকায় র‌্যাব সদর দপ্তরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। সেখানেই উদ্ধার হওয়া সন্তানকে তুলে দেওয়া হয় তার বাবা কাওছার হোসেন ও মা রুনা আক্তারের কোলে।

কাওসার হোসেন ও স্ত্রী রুনা আক্তার মোহাম্মদপুরের বিজলী মহল্লায় বাসিন্দা। গত ১৯ আগস্ট ঢামেক হাসপাতালে তাদের দুটি যমজ সন্তান হয়। ২১ আগস্ট সকালে একটি ছেলে চুরি হয়ে যায়।

হারানোর ১ সপ্তাহের মাথায় গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে গাজীপুর বোর্ডবাজারের উত্তর কলমেশ্বর এলাকায় বেলি আক্তার ওরফে রহিমা নামের এক নারীর বাসা থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করে র‌্যাব।

সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব জানায়, রাশেদা খানম পারভীন (৪৮) নামের এক ধাত্রী হাসপাতাল থেকে শিশুটিকে চুরি করে ৪০ হাজার টাকার বিনিময়ে রহিমার হাতে তুলে দেন।

সংবাদ সম্মেলনে নবজাতকের বাবা কাওসারকে কিছু বলতে অনুরোধ জানান র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান।

শিশু উদ্ধারে সংবাদকর্মীদের কৃতিত্ব দিয়ে কাওসার হোসেন বলেন, যদি মিডিয়ায় প্রচারিত না হতো, তবে আমার সন্তানকে উদ্ধার করা যেত না। সরকারকে ধন্যবাদ; প্রশাসনকেও ধন্যবাদ। মিডিয়ার প্রচারের কারণে তারা আমার সন্তানকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে।

তিনি বলেন, আমার ছেলে ২টা বড় হলে তাদেরকে সাংবাদিক বানাব।

এ সময় পাশ থাকা ১ জন শিশুটিকে উদ্ধারে র‍্যাবের ভূমিকার কথা স্মরণ করিয়ে দেওয়ায় কাওসার বলেন, আমি দুই ছেলেকেই সাংবাদিক বানানোর চিন্তা করেছি। তবে আপানাদের অনুরোধ থাকলে একজন র‌্যাব, একজন সাংবাদিক হবে। আপনারা দোয়া করবেন।

এমই/