গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত শতাধিক

0
35
brahmanbaria
ব্রহ্মণবাড়িয়ার মানচিত্র
brahmanbaria
ব্রহ্মণবাড়িয়ার মানচিত্র

সালিশি বৈঠকে দুই ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যের মাঝে হাতাহাতির ঘটনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলার দূর্গাপুর ও তাজপুর গ্রামের মধ্যে বুধবার ফের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়েছে।

এতে উভয়পক্ষের অর্ধশত লোক আহত হয়েছে। টানা ৩ দিনে সংঘর্ষে উভয় পক্ষের আহতের সংখ্যা শতাধিক ছাড়িয়েছে।
তাদেরকে জেলা সদর হাসপাতাল ও স্থানীয় বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

এদের মধ্যে ২০ জনের অবস্থা আশংকাজনক। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ব্যাপক লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ২২ দাঙ্গাবাজকে আটক করেছে পুলিশ। ধৃতদেরকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করা হলে আদালত তাদের প্রত্যেককে এক মাসের করে কারাদণ্ড দিয়েছেন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শি সূত্রে জানা যায়, উপজেলার দূর্গাপুর গ্রামের ইমামবাড়ির ফারুক ডাকাতি মামলায় জেলে আটক ছিল। স্থানীয় ইউপি সদস্য সিজানুর রহমান সিজান ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের সুপারিশ নিয়ে তাকে জেল থেকে জামিনে মুক্ত করেন। কিন্ত ডাকাতি মামলায় অভিযুক্ত ফারুক জেল থেকে বের হওয়ার পর ইউপি সদস্য কামাল মেম্বারের দোকানসহ দূর্গাপুর বাজারের বেশ কয়েকটি দোকানে চুরির ঘটনা ঘটে।

এ ব্যাপার গত সোমবার ইউনিয়ন পরিষদে এক সালিশ বৈঠকে কামাল মেম্বার এসব চুরি ডাকাতির ঘটনার জন্য সিজান মেম্বারকে দায়ী করে। এ নিয়ে উভয়ের মাঝে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়। এই ঘটনার জের ধরে প্রথমে গত সোমবার সন্ধ্যায় ও গত মঙ্গলবার দুপুরে দুই ইউপি সদস্যের পক্ষের লোকজনদের মধ্যে দু’দফা সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এরই জের ধরে আজ বুধবার সকালে পূণরায় উভয় পক্ষের সহস্রাধীক লোক দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। প্রায় ২ ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ৫০ জন লোক আহত হয়।

এসময় দাঙ্গাবাজরা দূর্গাপুর বাজারের একটি মুরগি ফার্ম ও ৭/৮টি বাড়িঘর ভাংচুর করে। ঘটনাস্থল থেকে ২২ দাঙ্গাবাজকে আটক করে।

এসপি/সাকি