কমলা দেবীর চিতা বধ!

0
43
Kamla Devi
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কমলা দেবী।

নিজের প্রাণ বাঁচাতে একটি চিতা মারলেন কমলা দেবী নামের এক ভারতীয় নারী। চিতার আক্রমণে আহত ওই নারী বর্তমানে শ্রীনগর গাড়োয়ালের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আধ ঘণ্টার যুদ্ধে চিতার কামড়ে ওই নারীর শরীরের বিভিন্ন স্থানে কেটে গেছে এমনকি হাঁড়ও ভেঙ্গেছে।

Kamla Devi
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কমলা দেবী।

গত রোববার দক্ষিণ উত্তরখণ্ডের রুদ্রপ্রয়াগের শেম নাউতি গ্রামের পাশে একটি নদী থেকে পানি আনতে গেলে নদীর পাশের ঝুপ-ঝাড় থেকে একটি চিতা বেড়িয়ে এসে কমলা দেবীকে আক্রমণ করে। কাস্তে ও কোদাল দিয়ে চিতার সঙ্গে যুদ্ধ করেন তিনি।

যুদ্ধ জয়ের পর কমলা দেবী বলেন, ভেবেছিলাম, মারা যাব। কিন্তু ধৈর্য এবং সাহসের সঙ্গে যুদ্ধ করে আমি প্রাণে বেঁচে গেছি। প্রায় আধ ঘণ্টা যুদ্ধের পর বুঝতে পারলাম, চিতাটি মারা গেছে।

হাসপাতালে কমলা দেবীর চিকিৎসা করছেন ডা. আব্দুল রাহুল। তিনি বলেন, কমলা দেবী ডান হাতে ২টি এবং বাম হাতে ১টি ভাঙ্গন ধরা পড়েছে। তার মাথা ও পায়ে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। শরীরের বিভিন্ন স্থানে কামড়ের চিহ্নও রয়েছে।

যুদ্ধের পর কমলা দেবীকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন গ্রামের বাসিন্দা পংকজ। তিনি বলেন, আনুমানিক সকাল ১০টার দিকে কমলা দেবী মাঠে গেলে হঠাৎ একটি চিতা তাকে আক্রমণ করে। তিনি খুব সাহসের সঙ্গে শুধুমাত্র কাস্তে দিয়ে ওই চিতার সঙ্গে যুদ্ধ করেছেন।

গত সপ্তাহে উত্তরখণ্ডে চিতার হামলায় এক নারীর মৃত্যু হয়েছিল এবং রুদ্রপ্রয়াগ অঞ্চলে অপর এক নারী গুরুতর আহত হয়।

গ্রামবাসী জানান, সম্প্রতি চিতার আক্রমণ খুব বেড়েছে। জনবসতিপূর্ণ এলাকায় খুব সহজে চিতা প্রবেশ করছে।

সূত্র: বিবিসি

এমই/