নজরুল স্মরণে নানা আয়োজন

0
48
Kazi-Nazrul-
কাজী নজরুল ইসলামের সমাধিস্থলে পুষ্পস্তবক অর্পণ- ফাইল ছবি

বিংশ শতাব্দীতে বাংলা সাহিত্য তথা সমগ্র বিশ্ব সাহিত্যের বিস্ময়কর সাহিত্য ও সঙ্গীত প্রতিভা কাজী নজরুল ইসলাম। আজ ২৭ আগস্ট সেই মহান পুরুষের ৩৮তম মৃত্যুবার্ষিকী। ঠিক ৩৮ বছর আগে ১৯৭৬ সালের এই দিনে (১৩৮৩ বঙ্গাব্দের ১২ ভাদ্র) ঢাকায় তত্কালীন পিজি হাসপাতালে এই মহান কবির জীবনাবসান ঘটে।

প্রতিবারের মতো এবারও দিবসটি উপলক্ষে সরকারি-বেসরকারি নানা কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

এ উপলক্ষে আলোচনা সভা, আবৃত্তি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন।

বাদ ফজর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদে কোরআন খানি, শোভাযাত্রা, মাজারে পুস্পস্তবক অর্পণ ও ফাতেয়া পাঠ করা হবে।

tagore-nazrul
বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সাথে নজরুল- ফাইল ছবি

এছাড়া সকাল ৭টায় ‘অপরাজেয় বাংলা’র পাদদেশে ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারিগণ জমায়েত হবেন। সেখান থেকে তারা সকাল ৭-১৫ মিনিটে উপাচার্যের নেতৃত্বে শোভাযাত্রা সহকারে কবির মাজারে গমন, পুস্পঅর্পণ ও ফাতেহা পাঠ করবেন। পরে কবির মাজার প্রাঙ্গণে উপাচার্যের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করবেন বাংলা বিভাগের চেয়ারপার্সন অধ্যাপক বেগম আকতার কামাল।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক, অফিসার ও কর্মচারীসহ সকলকে এই কর্মসূচিতে অংশগ্রহণের জন্য আহ্বান জানানো হয়েছে।

নজরুল একাডেমি:

দিবসটি উপলক্ষে নজরুল একাডেমি ৩ দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করেছে। বুধবার সকাল ৭টায় কবির মাজারে পুস্প অর্পণ ও ফাতেহা পাঠ করা হবে এবং নজরুল একাডেমি বিদ্যালয়ে মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে।

বৃহস্পতিবার নজরুল একাডেমি জেলা শাখাসমূহ কর্তৃক দেশের প্রতি জেলা, উপজেলায় অবস্থিত স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, সরকারি-বেসরকারি অফিস, দোকানপাট ও জনসাধারণের মধ্যে জাতীয় কবির সৃষ্টিকর্মের চর্চা, কবির মর্যাদা ও মূল্যায়ন সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি কর্মসূচির উদ্বোধন ও একইদিনে বাস্তবায়ন উপলক্ষে বিভিন্ন জায়গায় গমন কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিকতা শুরু।

মগবাজার গার্লস হাইস্কুলে সকাল ৮:৩০টায় অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন কবি নাতনি বেগম খিলখিল কাজী।

শুক্রবার সমাপ্তি দিবসে আলোচনা ও সঙ্গীতানুষ্ঠান সন্ধ্যা ৬:৪৫টায় নিজস্ব মিলনায়তন, নজরুল ভবন, বেলালাবাদ, মগবাজারে অনুষ্ঠিত হবে।

‘নজরুল উত্সব’ উপলক্ষে অনুষ্ঠানে শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী ও অতিথি শিল্পীবৃন্দ সঙ্গীত পরিবেশন করবেন। অনুষ্ঠান সকলের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

Kazi_Nazrul_Islam_with_family
পরিবারের সাথে নজরুল- ফাইল ছবি

আওয়ামী লীগ:

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ৩৮তম মৃত্যুবার্ষিকী যথাযোগ্য মর্যাদায় পালনের জন্য আওয়ামী লীগ কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে দলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ সকাল ৮টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদ প্রাঙ্গণে কবির সমাধিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ, ফাতেহা পাঠ ও মোনাজাত করবেন।

বিএনপি:

এদিকে বিএনপির পক্ষ থেকে সকাল ৭টায় কবি কাজী নজরুল ইসলামের মাজারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করা হবে। দিবসটি উপলক্ষে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া একটি বিবৃতি দিয়েছেন।

নজরুল ইন্সটিটিউট:

এছাড়াও নজরুল ইন্সটিটিউটের উদ্যোগে সকাল ৭টায় জাতীয় কবির সমাধিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং বিকাল ৪টায় আলোচনা সভা, পুরস্কার প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানটি জাতীয় জাদুঘরে অনুষ্ঠিত হবে।

nazrul
কাজী নজরুল ইসলাম- ফাইল ছবি

উল্লেখ্য, কাজী নজরুল ইসলামের জন্ম বাংলা ১১ই জ্যৈষ্ঠ ১৩০৬/১৮৯৯ইং, পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার চুরুলিয়া গ্রামে। তার পিতার নাম কাজী ফকির আহমেদ, মা জাহেদা খাতুন। দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণ করায় শিশু বয়সেই মক্তবে শিক্ষকতা, হাজী পালোয়ানের মাজারে খাদেম এবং মসজিদের মুয়াজ্জিনের কাজ করেছেন। পরবর্তীকালে বাংলা সাহিত্যে ইসলামী ঐতিহ্যের সার্থক ব্যবহারে এ সম্পৃক্ততা খুব ফলপ্রসূ হয়েছে।

কাজী নজরুলের গান বাংলা সঙ্গীতের ও সঙ্গীত-সাহিত্যের ইতিহাসে সবচেয়ে সৃজনশীল, মৌলিক, বাণী ও সুর সঙ্গীতের প্রধান সৃষ্টি। তাই শুধু কবিতায় নন, আধুনিক বাংলা সঙ্গীতের নজরুল পথিকৃত ও সর্বপ্রধান প্রতিভা।

১৯৭২ সালের ২৪ মে তত্কালীন প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের উদ্যোগে কবি সপরিবারে বাংলাদেশে আসেন। বাংলাদেশ সরকার কাজী নজরুল ইসলামকে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব প্রদান করে এবং ‘জাতীয় কবি’ হিসাবে ঘোষণা দেয়। তার জৈবিক আয়স্কাল ৭৮ বছর হলেও ১৯৪২ সালের জুলাই মাসে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। এরপর ১৯৭৬ সালের ২৯ আগস্ট মারা যান এ মহান কবি।

এএসএ/