৬০ বছরে পথের পাঁচালী

0
86
pather panchali
পথের পাঁচালীর একটি দৃশ্য।
pather panchali
পথের পাঁচালীর একটি দৃশ্য।

বাংলা চলচ্চিত্রের ইতিহাসের প্রথম ধ্রুপদী ছবি ‘পথের পাঁচালী’ ৬০ বছরে পদার্পণ করল মঙ্গলবার। বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপন্যাস অবলম্বনে ছবিটি নির্মাণ করেন সত্যজিৎ রায়। ১৯৫৫ সালের এই দিনে ছবিটি মুক্তি পায়।

অপু আর দূর্গা, দুই ভাই-বোনের দুরন্ত শৈশব, মানবিক প্রেম আর গ্রাম বাংলার নৈসর্গিক সৌন্দর্য উপন্যাসের পাতা থেকে সেলুলয়েডের ফিতায় জীবন্ত করে তুলেছিলেন সত্যজিৎ রায়। সত্যজিতের এই ছবি দেখে অনুপ্রাণিত হয়েছেন সমকালীন রাশিয়ান চলচ্চিত্র বোদ্ধা সের্গেই আইজেনস্টাইন ও জাপানি চলচ্চিত্রকার আকিরা কুরোসাওয়ার মতো বিখ্যাতরাও। পৃথিবীজুড়ে চলচ্চিত্রের ইতিহাসে আজও এটি অনবদ্য সৃষ্টি হিসেবে বিবেচিত হয়।

ছবিটি নির্মাণ করতে গিয়ে সত্যজিতকে পোহাতে হয়েছে নানা ভোগান্তি। ১৯৪৬ সালে ‌পথের পাঁচালী নির্মাণের ভাবনা মাথায় আসে তার। প্রথম দিকে তিনি এর প্রযোজক পাননি। তারপর নিজ খরচে শুরু করলেও আর্থিক অনটনের কারণে মাঝপথে বন্ধ হয়ে যায় ছবির নির্মাণ কাজ। শেষে তৎকালীন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের আনুকূল্যে শেষ হয় ছবির নির্মাণ প্রক্রিয়া। সেই সময় পথের পাঁচালী বানাতে খরচ হয়েছিল প্রায় দেড় লক্ষ টাকা।

প্রথম ভারতীয় চলচ্চিত্র হিসেবে ১৯৫৬ সালে এটি পায় কান চলচ্চিত্র পুরস্কার। বর্তমানে বিশ্বের বড় বড় ফিল্ম ইনস্টিটিউটগুলোর পাঠ্যসূচীতে ঠাঁই করে নিয়েছে উপন্যাসের অপু- দূর্গা।

বিভুতিভূষণ বন্দোপাধ্যায়ের কাহিনী অবলম্বনে সত্যজিতের তৈরি ‘অপু ট্রিলজীর’প্রথম ছবি ছিল ‌পথের পাঁচালী। বাকি দুটি হলো ‘অপরাজিত’ (১৯৫৬) এবং ‘অপুর সংসার’ (১৯৫৯)।