ডিএসইতে ৬ মাসে সর্বোচ্চ লেনদেন

0
43
DSE-CSE UP
 লেনদেন বেড়েছে

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) মঙ্গলবার গত ৬ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ লেনদেন হয়েছে। এদিন ডিএসইতে মোট ৭৯৪ কোটি ৯৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর আগে চলতি বছরের ৩ ফেব্রুয়ারি ডিএসইতে ৮০৪ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, মঙ্গলবার ডিএসইতে ৮৭ কোটি ৬৫ লাখ টাকার বা ১২ দশমিক ৩৯ শতাংশ বেশি শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আগের দিন এ বাজারে লেনদেন হয়েছিল ৭০৭ কোটি ৩০ লাখ টাকার শেয়ার।

বিশ্লেষকদের মতে, গত এক মাস ধরে পুঁজিবাজারে লেনদেন ইতিবাচক ধারায় রয়েছে। এর ফলে বিনিয়োগকারীদের আস্থা বেড়ে গেছে। এখন বড় মূলধনী কোম্পানির পাশাপাশি ব্যাংক-বিমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আস্থা ফিরেছে। এর ফলে লেনদেন বাড়ছে বলে মনে করেন তারা।

এদিন ডিএসই প্রধান মূল্য সূচক বাড়লেও কমেছে ডিএস৩০ সূচক্ ডিএসইএক্স সূচক ২৬ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৪ হাজার ৫৯০ পয়েন্টে। আর ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে এক হাজার ৬৫ পয়েন্টে। ডিএস৩০ সূচক শুন্য পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৭২৮ পয়েন্টে।

এদিন ডিএসইতে মোট লেনদেনে অংশ নিয়েছে ২৯৮টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৯৫টি কোম্পানির। আর দর কমেছে ৮০টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৩টির।

মঙ্গলবার ডিএসইতে টাকার অঙ্কে লেনদেনে শীর্ষ কোম্পানিগুলো হচ্ছে- বেক্সিমকো, বেক্সিমকো ফার্মা, এমজেএলবিডি, বিএসআরএম স্টীল, গ্রামীণ ফোন, গোল্ডেন সন, সামিট পাওয়ার লিমিটেড, খুলনা প্রিন্টিং অ্যান্ড প্যাকেজিং লিমিটেড, ওরিয়ন ফার্মা এবং লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট।

অপরদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সব ধরনে সূচক ও লেনদেন বেড়েছে। মঙ্গলবার সিএসই সার্বিক সূচক ৮৪ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৪ হাজার ১৯৮ পয়েন্টে। সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২২৪টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৪০টির, কমেছে ৬৮টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৬টির।

অর্থসূচক/এসএ/