জাহাঙ্গীর হত্যায় ‘শ্যুটার’ নাইম গ্রেপ্তার

0
30
Jahangir kabir
নিহত আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর কবির। ফাইল ছবি

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর কবিরকে গুলি করে হত্যায় জড়িত সন্দেহে ‘শ্যুটার’ নাইম আহমেদসহ ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

Jahangir kabir
নিহত আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর কবির। ফাইল ছবি

মঙ্গলবার সকালে র‍্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ বলেন, জাহাঙ্গীর কবির হত্যায় ৩ জনকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে বিকেল ৩টায় র‍্যাব সদর দপ্তরে সংবাদ সম্মেলন করে বিস্তারিত জানানো হবে।

তিনি বলেন, আমরা এই হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনে কাজ করছি।

র‍্যাব জানায়, পারিবারিক বিরোধের জের ধরেই জাহাঙ্গীরকে খুন করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। রোববার রাতে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে নাইমসহ ৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গত ৯ আগস্ট রাতে পশ্চিম আগারগাঁওয়ের ২০০/৪ নম্বর বাসার সামনে দুর্বৃত্তের গুলিতে খুন হন জাহাঙ্গীর কবির। ওই বাসার ৫ম তলায় তিনি স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে থাকতেন। রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ আওয়ামী লীগ নেতা নূর মোহাম্মদের (নূরু হাজী) জামাতা জাহাঙ্গীর কবির।

র‍্যাব জানায়, নূরু হাজীর ছেলে আনোয়ার হোসেন মিন্টুর নির্দেশে এ হত্যাকাণ্ড ঘটে। তিনি বর্তমানে ভারতে পলাতক রয়েছেন। নূরু হাজী ও তার জামাতা আব্দুল মান্নান রহস্যজনকভাবে নিখোঁজের পর তাদের সব সম্পত্তির দখল নেন জাহাঙ্গীর কবির। এ নিয়ে পরিবারের অন্য সদস্যরা তার ওপর ক্ষিপ্ত ছিলেন। এ ছাড়া রাজনৈতিক ও ব্যবসায়িক কারণে কিছু মানুষের সঙ্গে তার বিরোধ ছিল।

তারা জানায়, মিন্টুর ধারণা, তার বাবা ও ভগ্নিপতি নিখোঁজ হওয়ার পেছনে জাহাঙ্গীরের হাত রয়েছে। পাশাপাশি সম্পত্তি বেহাত হওয়ার বিষয়টিও তাকে ক্ষুব্ধ করেছে। এ কারণেই তিনি জাহাঙ্গীরকে খুন করার সিদ্ধান্ত নেন। তার হয়ে পুরো ঘটনার পরিকল্পনা করেন আমেনা বেগম ও তার স্বামী কবির হোসেন। আর জাহাঙ্গীরকে গুলি ছুড়ে হত্যা করেন নাইম। এ জন্য তাকে ৩ লাখ টাকা দেওয়া হয়।

এমই/