মুদ্রা পাচার: দুদকের জিজ্ঞাসাবাদে মোরশেদ খান

0
27
Morshad-khan and acc
Morshad-khanপ্রায় ৩২১ কোটি টাকার সমপরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা পাচারের অভিযোগে বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী এম মোর্শেদ খান ও তার ছেলে ফয়সাল মোর্শেদকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।
রাজধানীর সেগুন বাগিচায় দুদক কার্যালয়ে সোমবার  সকাল সাড়ে ১০টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত দুদকের উপ-পরিচালক মীর জয়নুল আবেদীন শিবলী তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করেন। অর্থসূচককে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দুদকের উপ-পরিচালক ও জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য।
জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মোরশেদ খান সাংবাদিকদের বলেন, এ সংক্রান্ত সবকিছু আপনারা দুদকের কাছ থেকে জেনে নেবেন।

এর আগে, গত ৩১ ডিসেম্বর বৈদেশিক মুদ্রায় ৩ কোটি ৯৫ লাখ ৬২ হাজার ৫৪১ মার্কিন ডলার ও ১ কোটি ৩৬ লাখ ৪৫ হাজার ৫৮৩ হংকং ডলার পাচারের অভিযোগে মোর্শেদ খান, তার স্ত্রী নাসরিন মোর্শেদ ও ছেলে ফয়সাল মোর্শেদ খানের বিরুদ্ধে রাজধানীর গুলশান থানায়  মামলাটি করেন দুদকের উপ-পরিচালক মনিরুজ্জামান। আার এ মামলাই তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে

মামলার এজাহার অনুযায়ী, মোরশেদ খানের প্রতিষ্ঠান ফারইস্ট টেলিকম লিমিটেডের মাধ্যমে মোট ১১টি বিভিন্ন ধরনের ব্যাংক হিসাব ব্যবহার করে মোট ৩২১ কোটি সাত লাখ ৫৩ হাজার ৩৫৯ টাকা দেশের বাইরে পাচার করেছেন। এম মোরশেদ খান বিএনপি সরকারের আমলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালে এসব অর্থ পাচার করেন। দুদক বিভিন্ন ব্যাংকে ফারইস্ট টেলিকমের নামে চারটি এফডি হিসাব, একটি ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড হিসাব, একটি ইউএসডি কারেন্ট হিসাব ও একটি ইউএসডি সেভিংস হিসাব খুঁজে পায়। এ ছাড়া স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের এম মোরশেদ খানের নামে একটি ইউএসডি সেভিংস ও একটি হংকং ডলার সেভিংস হিসাব এবং ওই ব্যাংকেই ছেলে ফয়সালের নামে একটি ইউএসডি সেভিংস ও একটি হংকং ডলার সেভিংস হিসেবে এসব অর্থ লেনদেনের প্রমাণ পেয়েছে।

এইউ নয়ন/ইউএম