‘আগামী অধিবেশনেই সংসদ পাবে বিচারপতি অভিশংসনের ক্ষমতা’

0
34
shuronjit sen
সাবেক রেলমন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত ( ফাইল ছবি)
shuronjit sen
সাবেক রেলমন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত ( ফাইল ছবি)

আগামী অধিবেশনে সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনীর মাধ্ম্যে বিচারপতিদের অভিশংসন ক্ষমতা জাতীয় সংসদের হাতে ফিরিয়ে আনা হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত।

সোমবার রাজধানীর জাতীয় গণগ্রন্থাগারে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহত আওয়ামী লীগ নেত্রী আইভী রহমানের স্মরণে আয়োজিত এক সভায় তিনি এ কথা বলেন।

সুরঞ্জিত বলেন, সামরিক ফরমানের মাধ্যমে ৭২-এর সংবিধানে থাকা অভিশংসনের যে বিষয়টি বাতিল করা হয়েছিল, তা আগামী সংসদ অধিবেশনে ষোড়শ সংশোধনীর মাধ্যমে ফিরিয়ে আনা হবে।

‘নৌকা সমর্থক গোষ্ঠী’ আয়োজিত এ সভায় সংগঠনের উপদেষ্টা হাজি মো. সেলিমের সভাপতিত্ব করেন।

সভায় সংগঠনের সভাপতি হুমায়ুন কবির মিজি জানান, ১৯৭২ সালের সংবিধানে সংসদ কর্তৃক বিচারপতিদের অভিশংসন ক্ষমতা ছিল। পরে সেনা-সমর্থিত সরকার তা বাতিল করে। পঞ্চদশ সংশোধনীতে এ ক্ষমতা ফিরিয়ে আনা উচিত ছিল। কিন্তু, কিছু স্বার্থান্বেষী মহলের কারণে তা সম্ভব হয়নি। আগামী সংসদ অধিবেশনে ষোড়শ সংশোধনীর মাধ্যমে অভিশংসন ক্ষমতা সংসদের হাতে ফিরিয়ে আনা হবে।

বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে সুরঞ্জিত বলেন, আপনাদের এতে হইচই করার কিছু নেই। কিন্তু যেকোনো বিষয়ে হইচই করাই হচ্ছে আপনাদের রাজনৈতিক “শিষ্টাচার”।

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা চালানো সম্পর্কে সুরঞ্জিত বলেন, কোথা থেকে গ্রেনেড এসেছে, কীভাবে এসেছে, তা হাওয়া ভবন জানত। ২১ আগস্ট রক্তপাতের জন্য খালেদা ও তারেক জিয়া দায়ী। এ অভিযোগ থেকে তাদের বাঁচার উপায় নেই।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে উদ্দেশ্য করে সাবেক রেলমন্ত্রী বলেন, তিনি হঠাৎ কেন গরম হলেন, তার কোথায় আঘাত লেগেছে, আমরা তা জানি। নিজেদের ভুল আর বিভ্রান্ত রাজনীতির কারণে দলীয় কর্মীদের ধরে না রাখতে পেরে তিনি গরম হয়ে গেছেন।

এর আগে গত রোববার মির্জা ফখরুল বলেন, গ্রেনেড হামলা মামলা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য বিচারপ্রক্রিয়াকে শুধু প্রভাবিতই করছে না, বিভ্রান্তও করছে। নিঃসন্দেহে তার বক্তব্য আদালত অবমাননার শামিল।