চলে গেলেন রিচার্ড অ্যাটেনবরো

0
26
Richard Attenborough
রিচার্ড অ্যাটেনবরো- ফাইল ছবি

কিংবদন্তি পরিচালক-অভিনেতা রিচার্ড অ্যাটেনবরো মারা গেছেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯০ বছর।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, রবিবার দুপুরে খাওয়ার সময় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

সোমবার ভারতের কয়েকটি বার্তাসংস্থা এ তথ্য জানিয়েছে।

ব্রিটিশ অভিনেতা তথা পরিচালক রিচার্ড অ্যাটেনবরো অন্তত ৬’দশক কাটিয়েছেন সিনে দুনিয়ায়। তাই তার মৃত্যুতে অপূরণীয় ক্ষতি হল চলচ্চিত্র জগতে।

ক্যামেরার সামনে ও পিছনে সমান দক্ষ ছিলেন রিচার্ড। এমনকি বিভিন্ন চরিত্রেও তিনি ছিলেন সাবলীল। তবে দুনিয়া তাকে মনে রেখেছে ‘গান্ধী’ ছবিটির জন্য।

১৯৮২ সালে মুক্তি পেয়েছিল সিনেমাটি। এ জন্য তিনি ২টি অ্যাকাডেমি পুরস্কার, ২টি বাফটা পুরস্কার এবং ২টি গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার পান। ৮টি অস্কার জিতেছিল ‘গান্ধী’ ছবিটি। অ্যাটেনবরো পরিচালিত ছবিতে মহাত্মা গান্ধীর ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন বেন কিংসলে।

প্রয়াণ সংবাদ শুনে বেন কিংসলে বলেছেন, গান্ধী সিনেমায় আমাকে নেওয়ার জন্য আমি ওর প্রতি চিরকৃতজ্ঞ থাকব। সব সময় ওর অভাব অনুভব করব।

তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন।

১৯২৩ সালে রিচার্ড অ্যাটেনবরোর জন্ম। ১৮ বছর বয়সে শুরু হয় পেশাদার নাট্যজীবন। ১৯৪২ সালে ‘ইন হুইচ উই সার্ভ’ সিনেমায় প্রথম অভিনয় করেন তিনি। তার পর আস্তে আস্তে তার খ্যাতি ছড়িয়ে পড়ে সারা বিশ্বে।

‘ইন হুইচ উই সার্ভ’ (১৯৪২), ‘ব্রাইটন রক’ (১৯৪৭), ‘দ্য গ্রেট এসকেপ’ (১৯৬৩), ‘ডক্টর ডুলিটল’ (১৯৬৭), ‘জুরাসিক পার্ক’ (১৯৯৩), ‘এলিজাবেথ’ (১৯৯৮) ইত্যাদি হল রিচার্ড অ্যাটেনবরো অভিনীত বিখ্যাত সিনেমা।

‘গান্ধী’ (১৯৮২), ‘ক্রাই ফ্রিডম’ (১৯৮৭), ‘চ্যাপলিন’ (১৯৯২), ‘ইন লাভ অ্যান্ড ওয়ার’ (১৯৯৬), ‘গ্রে আউল’ (১৯৯৯) ইত্যাদি হল রিচার্ড অ্যাটেনবরো পরিচালিত বিখ্যাত ছবি।

এএসএ/