ফের ধর্ষণের পর হত্যার হুমকি তৃণমূল নেতার

0
29
Rape
ধর্ষণ (প্রতীকী ছবি)
t-pal
পশ্চিমবঙ্গের মেদিনীপুরের উপ পৌর মেয়র জিতেন্দ্রনাথ দাস। (ফাইল ছবি)

আবারও ধর্ষণের হুমকির অভিযোগ উঠেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেসের এক নেতার বিরুদ্ধে। তবে এবার শুধু ধর্ষণ নয়, সাথে যুক্ত হয়েছে মায়ের সামনেই মেয়েকে হত্যার হুমকির অভিযোগ।

এক খবরে আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, পশ্চিমবঙ্গের মেদিনীপুরের উপ পৌর মেয়র জিতেন্দ্রনাথ দাসের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উত্থাপন করেছেন এক বিধবা নারী ও তার মেয়ে।

বিধবার অভিযোগ, জমি বিক্রির টাকা চাইতে তিনি এ আচরণের শিকার হন।

তিনি জানান, জিতেন্দ্রনাথের মধ্যস্থতায় তার একটি জমি বিক্রি হয়েছিল ১৫ লক্ষ টাকায়। কিন্তু তাকে অর্ধেক টাকা দেওয়া হয়। বাকি টাকার ব্যাপারে সুরাহা করতে তিনি ও তার মেয়ে গত ২১ আগস্ট জিতেন্দ্রনাথে কাছে যান। কিন্তু তিনি টাকা ফেরানোর বন্দোবস্ত না করে উল্টো ওই বিধবার তরুণী মেয়েকে ধর্ষণের পর খুন করার হুমকি দেন।

এ ব্যাপারে মা-মেয়ে থানায় অভিযোগ জানাতে গিয়েও তাদের ফেরত আসতে হয়।

পর দিন শুক্রবার জেলার পুলিশ সুপারের কাছে গিয়ে তারা জিতেন্দ্রনাথ ও তার সাঙ্গপাঙ্গদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। কিন্তু অভিযোগপত্রে শুধু টাকা না পাওয়া এবং শাসানির কথাই লেখা হয়, ধর্ষণ ও খুন এড়িয়ে যাওয়া হয়।

ওই মহিলার মেয়ে জানান, অভিযোগ লেখানোর এক মুহুরির ধর্ষণ ও খুনের হুমকির কথা উল্লেখ করতে ভুল করেছেন।

তাদের আইনজীবী জানান, তাড়াহুড়ো করে লিখতে গিয়ে মুহুরি কিছু কথা বাদ দিয়েছেন। এখন ওরা নতুন করে সরাসরি আদালতে অভিযোগ জানাবেন বলে ঠিক করেছেন। সেখানে ধর্ষণ-খুনের হুমকির কথা লেখা থাকবে।

জিতেন্দ্রনাথবাবু অবশ্য সমস্ত অভিযোগই অস্বীকার করেছেন। তার দাবি, ওই জমি কেনা-বেচার ব্যাপারে তিনি জড়িত ছিলেন না। অভিযোগকারী মা-মেয়ের সঙ্গে তার ২১ তারিখ দেখাই হয়নি।

প্রসঙ্গত, এর আগে জনসমাবেশ সিপিএমের কর্মীদের বাড়িতে গিয়ে ধর্ষণ করার বক্তব্য দিয়ে ব্যাপক সমালোচিত হয়েছিলেন তৃণমূলের সাংসদ ও অভিনেতা তাপস পাল।

পরবর্তীতে পূর্ব মেদিনীপুরের সিপিএমের এক ঘরছাড়া নেতার স্ত্রীকে গণধর্ষণ করে খুনের অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের পঞ্চায়েত সমিতির ১২ জন কর্মীর বিরুদ্ধে।