আইসল্যান্ডে বিমান চলাচলে রেড এলার্ট

0
23
iceland volcano eruption
২০১০ সালে আইসল্যান্ডের ইয়াজাফজালাজুকুল আগ্নেয়গিরির লাভা থেকে সৃষ্ট ছাইমেঘের কারণে ইউরোপজুড়ে বিমান যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছিলো। (ফাইল ছবি)
iceland volcano eruption
২০১০ সালে আইসল্যান্ডের ইয়াজাফজালাজুকুল আগ্নেয়গিরির লাভা থেকে সৃষ্ট ছাইমেঘের কারণে ইউরোপজুড়ে বিমান যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছিলো। (ফাইল ছবি)

সম্ভাব্য অগ্ন্যুৎপাতের আলামতের পরিপ্রেক্ষিতে আইসল্যান্ডেরওপর দিয়ে বিমান চলাচলে রেড এলার্ট জারি করা হয়েছে।একই কারণেইউরোপজুড়ে আকাশ পথে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি সতর্কতা ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।

আইসল্যান্ডেরপাঁচ স্তর বিশিষ্ট নিরাপত্তা ব্যবস্থায় রেড এলার্টই হলো সর্বোচ্চ।

দেশটির আবহাওয়া দপ্তরের বরাত দিয়ে শনিবার এক খবরে বিবিসিজানিয়েছে, আইসল্যান্ডেরসবচেয়ে বড় হিমবাহ ভ্যাটনজুকুলের নিচে থাকা আগ্নেয়গিরি দায়ানজুকুল থেকে গত বুধবার হালকা উদগীরণ ঘটে। এর প্রভাবে ৩০ কি.মি.দূরে থাকা আরেকটি আগ্নেয়গিরি বারদারবুঙ্গা এলাকায় ভূ-কম্পন হচ্ছে, যার ফলে বড় ধরনের অগ্ন্যূৎপাতের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

মধ্য আইসল্যান্ডের ওই এলাকার আগ্নেয়গিরিগুলো ভ্যাটনজুকুল আগ্নেয়গিরি সিস্টেমের শাখা প্রশাখা। বিশাল বরফের চাঁইয়ের ৫০০ মিটার নিচে এসব আগ্নেয়গরি লুকিয়ে রয়েছে।

অগ্ন্যুতপাতের আশঙ্কায় আইসল্যান্ডের ওই এলাকার আকাশ পথ ইতোমধ্যে বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। তবে এখনো পর্যন্ত কোনো বিমানবন্দরের কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়নি।

ইউরোপিয়ান এয়ার সেফটি এজেন্সি ইউরোকন্ট্রোল জানিয়েছে, বিমান চলাচল বন্ধ রাখার মতো পরিস্থিতি এখনো তৈরি হয়নি। তবে সম্ভাব্য অগ্ন্যুতপাতের বিষয়টি বিবেচনায় রেখে প্রতি ছয় ঘন্টা অন্তর পূর্বাভাস দেওয়া হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, আইসল্যান্ডের রাজধানী রিয়েকজাভিক থেকে ৩০০ কি.মি দূরে ওই আগ্নেয়গিরির অবস্থান। ওই এলাকায় স্থায়ীভাবে কেউ বসবাস করে না। তবে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের কারণে সেখানে বছরজুড়ে থাকে পর্যটকদের আনাগোনা।

রেড এলার্ট জারির পর ওই এলাকা থেকে কয়েক শতাধিক পর্যটককে নিরাপদ অবস্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

এর আগে ২০১০ সালে আইসল্যান্ডের ইয়াজাফজালাজুকুল আগ্নেয়গিরির লাভা থেকে সৃষ্ট ছাইমেঘের কারণে ইউরোপজুড়ে বিমান যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছিলো। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর আকাশপথে যোগাযোগের ক্ষেত্রে ঘটা সবচেয়ে বিপর্যয়ে আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ ছিল প্রায় ২৫ লাখইউরো।