যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশি অভিবাসনের হার কমছে

0
39
Bog Ben
বিগ বেন (ফাইল ছবি)
Bog Ben
বিগ বেন (ফাইল ছবি)

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশি অভিবাসনের হার ধারাবাহিক কমছে। বর্তমানে শিক্ষা এবং কাজের সূত্রে বছরে মাত্র ১০ থেকে ১৫ জন বাংলাদেশি ইউরোপের এ দেশে পাড়ি জমাচ্ছে। অথচ এক সময় এ সংখ্যা ছিল দুই থেকে আড়াই হাজার।

বাংলাদেশ জনশক্তি রপ্তানি ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) তথ্য মতে, সরকারের অনুমোদন নিয়ে অভিবাসী ভিসায় গত ১১ বছরে যুক্তরাজ্যে গিয়েছেন ১০ হাজার ১৫৫ জন বাংলাদেশি।

যুক্তরাজ্য সরকারের অনুমোদন লাভের পর ২০০৩ সালে ১৬৬ জন বাংলাদেশি দেশটিতে পাড়ি জমান। ২০০৪ সালে বিভিন্ন ভিসায় গিয়েছেন দুই হাজার ১৫৫ জন। পরের বছর গিয়েছিলেন ২ হাজার ৭৯৩ জন। এরপর কয়েক বছর অভিবাসনের হার ধারাবাহিকভাবে বাড়লেও ২০১০ সালের পর থেকে তা কমতে শুরু করে।

২০০৯ সালের এক হাজার ২৫৩ জনের বিপরীতে ২০১০ সালে যুক্তরাজ্যে যেতে পেরেছেন মাত্র ১৭৩ জন। এরপর ২০১১ সালে ৩০ জন, ২০১২ সালে ১৭ জন এবং ২০১৩ সালে ১৪ জনে এসে দাড়ায় অভিবাসনের হার। চলতি বছরের প্রায় ৮ মাস পেরিয়ে গেলেও সরকারের অনুমোদন নিয়ে যুক্তরাজ্য গিয়েছেন মাত্র ৯ জন বাংলাদেশি।

তবে অনুমোদনহীনভাবে কিছু লোক ভ্রমণ এবং চিকিৎসা ভিসায় দেশটিতে অভিবাসী হয়েছেন বলে তথ্য রয়েছে বিএমইটির কাছে।

সব মিলিয়ে বর্তমানে দেশটিতে ২০ হাজারের মতো বাংলাদেশি অভিবাসী রয়েছে।

এদিকে যুক্তরাজ্যে অভিবাসনের হার ধারাবাহিক কমে যাওয়ার পেছনে কূটনৈতিক দূর্বলতা ও অর্থনৈতিক মন্দাকে দায়ী করছেন সংশ্লিষ্টরা।

গবেষণা প্রতিষ্ঠান রিফিউজি অ্যান্ড মাইগ্রেটরি মুভমেন্ট রিসার্চ ইউনিট (রামরু) প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. তাসনিম সিদ্দিকী অর্থসূচককে বলেন, যে হারে যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশিদের অভিবাসন কমে যাচ্ছে; এতে খুব শিগগিরই দেশটিতে বাংলাদেশিদের খুঁজে পাওয়ার সম্ভবনা হারিয়ে যাবে।

তিনি জানান, দেশটির সাথে কুটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার করলে বাংলাদেশিদের জন্য স্টুডেন্টসহ অন্যান্য প্রফেশনাল ভিসা পাওয়া যেতে পারে।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. খোন্দকার শওকত হোসেন বলেন, যুক্তরাজ্য সরকার আমাদের ব্যাপারে সব সময়ই ইতিবাচক। তবে অর্থনৈতিক মন্দা শুরু হওয়ার পর দেশটি এশিয়ার দেশগুলো থেকে লোক নেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। আমরা অভিবাসী পাঠানোর প্রক্রিয়া পুনরায় শুরুর চেষ্টা চালাচ্ছি।