মার্কিন কূটনীতিকদের ‘বরফস্নান’ নিষেধ

0
42

অ্যাময়িওট্রফিক ল্যাটেরাল সক্লেরোসিস, লু গেয়ারিগ নামক স্নায়ু রোগের তহবিল গড়তে চলছে ‘এএলএস আইস বাকেট চ্যালেঞ্জ’।অ্যামেরিকা ও ইউরোপ সহ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ইতোমধ্যে তা জনপ্রিয় হয়ে উঠছে৷ তবে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিষয়টিকে ভালো চোখে দেখছে না৷ তাই সব মার্কিন কূটনীতিকের ওপর ‘ বরফ বালতি নিষেধাজ্ঞা’ চাপানো হয়েছে৷ice baket challenge

ফেডারেল প্রশাসনের একটি নির্দেশিকার উল্লেখ করে বলা হয়েছে, যে রাষ্ট্রদূতসহ উচ্চপদস্থ কূটনীতিকরা নিজেদের পদমর্যাদা ভেঙে ব্যক্তিগত লাভের জন্য কোনো কাজ করতে পারেন না – তা সে কাজ যতই মহৎ হোক না কেন৷

ডয়েচে ভেলের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এক কঠিন স্নায়ুরোগের গবেষণায় অর্থ সংগ্রহের এই মহৎ কাজের ওপর ‘নৈতিক কারণে’ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়৷

মহৎ কাজের জন্য অর্থ সংগ্রহের বিষয়ে সরাসরি আপত্তির কথা বলছে না পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়৷

এদিকে ‘আইস বাকেট চ্যালেঞ্জ’ কতটা নিরাপদ, তা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে৷ বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের কেন্টাকি রাজ্যের এক বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি অনুষ্ঠানে বরফ ঢালার কাজে সাহায্য করছিলেন কয়েকজন দমকল কর্মী৷ তাদের মধ্যে ৪ জন আহত হয়েছেন, ২ জনের অবস্থা গুরুতর৷

প্রসঙ্গত, মার্ক জাকারবার্গ, বিল গেটস, জর্জ ডব্লিউ বুশ, ল্যাডি গাগা, ক্রিস গেইল, যুবরাজ সিং, ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডো থেকে সানিয়া মির্জা পর্যন্ত সবাই এতে অংশ নিয়েছেন৷

শরীরে বরফ পানি ঢালার ক্ষেত্রে নিয়মটা বেশ সহজ৷ এতে অংশগ্রহণকারী তার শরীরে বরফ পানি ঢালেন৷ এরপর তিনি তার ৩ জন বন্ধুকে একই কাজ করার জন্য চ্যালেঞ্জ জানান৷ এই চ্যালেঞ্জ আবার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গ্রহণ করতে হবে৷ নতুবা ১০০ মার্কিন ডলার দান করতে হবে এএলএস ফাউন্ডেশনকে৷ তবে পানি ঢাললেও দান থেকে রেহাই নেই৷ সেক্ষেত্রে দিতে হবে ১০ মার্কিন ডলার৷

গত ৩ সপ্তাহে এই অনলাইন হুজুগ থেকে থেকে এএলএস ফাউন্ডেশনের আয় হয়েছে প্রায় ১৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার৷

ইউএম/