‘চাটুকাররাই মুজিবের পরিণতির দিকে নিচ্ছে হাসিনাকে’

0
30
শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে তোবা গার্মেন্টসসহ সকল পোশাক কারখানার শ্রমিকদের বেতন-ভাতা ও চাকরির নিশ্চয়তা দেওয়ার দাবিতে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে সিপিবির কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা মঞ্জুরুল আহসান খান। ছবি- জসিম বাদল
শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে তোবা গার্মেন্টসসহ সকল পোশাক কারখানার শ্রমিকদের বেতন-ভাতা ও চাকরির নিশ্চয়তা দেওয়ার দাবিতে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে সিপিবির কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা মঞ্জুরুল আহসান খান। ছবি- জসিম বাদল
শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে পোশাক কারখানার শ্রমিকদের বেতন-ভাতা ও চাকরির নিশ্চয়তা দেওয়ার দাবিতে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে সিপিবির কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা মঞ্জুরুল আহসান খান বক্তব্য দিচ্ছেন। ছবি- জসিম বাদল

সিপিবির কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা মঞ্জুরুল আহসান খান মনে করেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আশপাশে যেসব চাটুকার ছিল তারাই তার রক্ত ডিঙ্গিয়ে রাষ্ট্রপতি হয়েছে। একইভাবে বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশপাশে যেসব চাটুকার রয়েছে তারাও তাকে মুজিবের পরিণতির দিকে ধাবিত করছে।

শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে তোবা গার্মেন্টসসহ সকল পোশাক কারখানার শ্রমিকদের বেতন-ভাতা ও চাকরির নিশ্চয়তা দেওয়ার দাবিতে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মঞ্জুরুল আহসান বলেন, শেখ হাসিনা দুষ্টের লালন আর সৃষ্টের দমন করছেন। এই দুষ্টরাই তাকে মুজিবের পরিণতির দিকে নিয়ে যাচ্ছে।

‘সিপিবি শেখ মুজিবকে এক সময় সমর্থন করেছিল’- প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তখন আমরা মুজিবের নীতিকে সমর্থন করেছি, মুজিবকে নয়। যারা মুজিবকে সমর্থন করেছিল, তার আশপাশে ছিল, তারাই মুজিবকে হত্যা করে রাষ্ট্রপতির পদ দখল করেছে।

তৎকালীন রাষ্ট্রপতি মোস্তাক আহমেদকে ইঙ্গিত করে মঞ্জুরুল আহসান খান বলেন, সে (মোস্তাক) মুজিবের খুব ঘনিষ্ঠ ছিল। আর তাকে হত্যা করার পরে সে রাষ্ট্রপতি হয়েছে।

এখনও মোস্তাকের মতো অনেক চাটুকার আছে- উল্লেখ করে তিনি তাদের থেকে দূরে থাকার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে সতর্ক করেন।

মঞ্জুরুল আহসান খান বলেন, শ্রমিকবান্ধব নামধারী কিছু দালাল আছে যারা শ্রমিকদের সহযোগিতার নামে বিজিএমইএ ও সরকারের দালালি করছে। এরা মূলত শ্রমিকদের ক্ষতি করছে।

সরকারকে হুঁশিয়ার করে সিপিবির এই নেতা বলেন, দেশে ৪০ লাখ পোশাক শ্রমিক আছে। এদের মাত্র ৪ লাখ শ্রমিক আন্দোলন করলেই দিশা পাবেন না। তখন ঠিকই তাদের সকল দাবি আদায় হবে।

রানা প্লাজায় হতাহত শ্রমিকদের ফান্ডের ১০৫ কোটি টাকা নিয়ে অনিয়ম ও দুর্নীতি চলছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

জেইউ/এমআই/সাকি