আটকে গেল ইন্দিরার খুনিদের নিয়ে ছবির মুক্তি

0
44
Kaum-De-Heere-
Kaum-De-Heere-
‘কওম দি হীরে’ ছবির পোস্টার।

মুক্তি আটকে গেল ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর ৩ হত্যাকারীর জীবন নিয়ে নির্মিত ছবি ‘কওম দি হিরে’র।

এক খবরে টাইমস ইন্ডিয়া জানিয়েছে, ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আপত্তি আমলে নিয়ে মুক্তির একদিন আগে শুক্রবার তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় ছবিটির মুক্তিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।

ভারতীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অভিযোগ, ছবিটি হিন্দু-শিখ সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা উস্কে দিতে পারে।

পাঞ্জাবি ভাষায় নির্মিত এ ছবিতে ইন্দিরার ৩ খুনি কেহার সিং, বিয়েন্ট সিং ও সত্যবন্ত সিংকে শহীদ হিসেবে উপস্থাপন করা হয়েছে।

দেশটিতে ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা দল (বিজেপি) শুরু থেকেই ছবিটির মুক্তির বিরোধিতা করে আসছিল। এমনকি পাঞ্জাবের বিজেপি নেতা লক্ষ্মী কান্তা চাওলা ছবিটির মুক্তি আটকে দিতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথের কাছে চিঠি লিখেছিলেন।

সম্প্রতি দেশটির কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা (সিবিআই) সেন্সরবোর্ডে ছবিটির অনুমোদন প্রাপ্তি নিয়েও জালিয়াতির সন্ধান পায়। সিবিআই জানিয়েছে, ছবিটিতে আপত্তিকর বিষয়বস্তু থাকার কারণে এক লাখ রুপি ঘুষ নিয়ে ভারতীয় সেন্সরবোর্ডের প্রধান নির্বাহী রাকেশ কুমার ছবিটির ছাড়পত্র দিয়েছিলেন।

রাকেশ কুমার বর্তমানে সিবিআই’য়ের হাতে আটক রয়েছেন।

ছবিটি অবশ্য ইতিমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপ,কানাডা, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে মুক্তি পেয়েছে। বেশ কিছু আপত্তিকর দৃশ্য ও সংলাপের কারণে গত ২৮ ফেব্রুয়ারি ভারতীয় সেন্সর বোর্ড এই ছবির মুক্তি আটকে দেয়। এর পর একাধিকবার কাঁটাছেড়া করেছবিটি ভারতের প্রদর্শনের অনুমতি দেয়া হয়।

প্রসঙ্গত, শিখদের তীর্থস্থান অমৃতসরের স্বর্ণমন্দিরে সেনা অভিযানের জের ধরে ১৯৮৪ সালের ৩১ অক্টোবর শিখ দেহরক্ষীর গুলিতে ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী নিহত হন। এর পরপরই দেশটিতে হিন্দু-শিখ সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা ছড়িয়ে পড়ে।

এর আগে ইন্দিরা গান্ধী হত্যা ও দাঙ্গা নিয়ে নির্মিত সাডা হক, পাঞ্জাব ১৯৮৪ ছবিগুলোও মুক্তির পর বিতর্কের মুখে পড়ে।