সপ্তাহের ব্যবধানে গড় লেনদেন কমেছে ২%

0
24
লেনদেন কমেছে
DSE_Suchak
ডিএসই নিম্নমুখী সূচক

সপ্তাহের ব্যবধানে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই)  গড় লেনদেন কমেছে ২ দশমিক ১২ শতাংশ হারে।  কারণ গত সপ্তাহে একদিন ছুটি থাকায় লেনদেন হয়েছে ৪ দিন। একই সাথে  সপ্তাহের ব্যবধানে  ডিএসইতে বাজার মূলধন ও প্রধান মূল্য সূচকও কমেছে।

বিশ্লেষকদের মতে, গত সপ্তাহে পুঁজিবাজারে ৪ দিন লেনদেন হয়েছে। আর ৩ কার্যদিবসেই সূচক পতনে লেনদেন শেষ হয়েছে। কারণ আগের দুই সপ্তাহে বাজার ঊর্ধ্বমুখী ছিল। গত সপ্তাহে বিনিয়োগকারীদের মুনাফা তোলার চাপে সূচক ও লেনদেনে প্রভাব পড়েছে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ২১ দশমিক ৬৯ শতাংশ বা ৭২৯ কোটি ১০ লাখ টাকার। পুরো সপ্তাহে  ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২ হাজার ৬৩১ কোটি ৮৯ লাখ ৬৬ হাজার টাকার শেয়ার। আর আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ৩ হাজার ৩৬১ কোটি টাকার।

এই লেনদেনের মধ্যে ‘এ’ক্যাটাগরির কোম্পানির শেয়ার লেনদেন ছিল ৭৯ দশমিক ৪০ শতাংশ। ‘বি’ক্যাটাগরির লেনদেন ছিল ১ দশমিক ৬৬ শতাংশ, ‘এন’ক্যাটাগরির লেনদেন ছিল ১৪ দশমিক ৬ শতাংশ এবং ‘জেড’ ক্যাটাগরির লেনদেন ছিল ৪ দশমিক ৮৮ শতাংশ।

ডিএসইর প্রধান সূচক বা ডিএসইএক্স সপ্তাহের ব্যবধানে শূন্য দশমিক ১৬ শতাংশ বা ৭ দশমিক ৪৫ পয়েন্ট কমেছে। সপ্তাহের প্রথম দিনে এই সূচকের অবস্থান ছিল ৪ হাজার ৫৫৪ পয়েন্ট । আর সপ্তাহের শেষ দিনে এই সূচকের অবস্থান দাঁড়ায় ৪ হাজার ৫৪৭ পয়েন্টে।

এদিকে সপ্তাহের ব্যবধানে বেড়েছে ডিএসইতে অপর দুই সূচক।

ডিএস৩০ সূচক বেড়েছে ১ দশমিক ২০ শতাংশ বা ২০ দশমিক ৫০ পয়েন্ট। সপ্তাহের প্রথম দিনে এই সূচকের অবস্থান ছিল এক হাজার ৭০৫ পয়েন্ট। আর সপ্তাহের শেষ দিনে এই সূচকের অবস্থান দাঁড়ায় এক হাজার ৭২৬ পয়েন্টে।

শরীয়াহ বা ডিএসইএস সূচক বেড়েছে দশমিক ১২ শতাংশ বা ১ দশমিক ২৭ পয়েন্ট। সপ্তাহের প্রথম দিনে এই সূচক ছিল এক হাজার ৬০ পয়েন্টে। আর শেষ দিনে দাঁড়ায় এক হাজার ৬১ পয়েন্টে।

গত সপ্তাহে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ৩১০টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৫২টির, কমেছে ২৪১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১২টির। আর লেনদেন হয়নি ৫টি কোম্পানির।

অর্থসূচক/এসএ/