‘বিয়েতে বয়স ব্যাপার নয়’

0
110
Aishwarya Rai Bachchan, Abhishek Bachchan
বলিউড অভিনেত্রী ঐশ্বরিয়া তার চেয়ে দুই বছর কম বয়সী অভিষেক বচ্চনের সাথে সাত বছর ধরে সংসার করছেন। (ফাইল ছবি)
Aishwarya Rai Bachchan, Abhishek Bachchan
বলিউড অভিনেত্রী ঐশ্বরিয়া তার চেয়ে দুই বছর কম বয়সী অভিষেক বচ্চনের সাথে সাত বছর ধরে সংসার করছেন। (ফাইল ছবি)

বিয়েতে বয়স মোটেও বাধা নয়। বরং বিয়ের ক্ষেত্রে বয়স নিয়ে যে দ্বন্দ্ব, তা প্রকৃতপক্ষে সামাজিক কুসংস্কার।

কেননা, নারী-পুরুষের সম্মিলনে সংসার তৈরিতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হল দুজনের বোঝাপড়া।

ইতিহাসে অসম বয়সীদের সফল সংসারের একাধিক নজির আছে। এসব ক্ষেত্রে দেখা গেছে, বয়স সংসারে জীবন-যাপনে কোনো বাধা হয়ে দাঁড়ায়নি।

বরং আমাদেরে চারপাশে স্বামী-স্ত্রী বয়সের সামঞ্জস্য থাকা সত্ত্বেও সংসার ভেঙ্গে যাওয়ার একাধিক উদাহরণ আছে। এসব ক্ষেত্রে দেখা গেছে, দুজনের মত বা চিন্তার ভিন্নতাই বিচ্ছেদের একমাত্র কারণ।

শুধু সামাজিক পশ্চাদপদতার কারণে অসম বয়সীদের বিয়ে ভিন্ন চোখে দেখা হয়। একই অবস্থা পশ্চিমা দেশগুলোতেও।

স্ত্রী শাওনের ও ছেলের সাথে প্রয়াত কথাসাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদ। তাদের এ বিয়ে বয়সের কারণে বেশ আলোড়ন তুলেছিল।
স্ত্রী শাওন ও ছেলের সাথে প্রয়াত কথাসাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদ। তাদের এ বিয়ে বয়সের কারণে বেশ আলোড়ন তুলেছিল।

খালিজ টাইমস জানিয়েছে, পশ্চিমা দেশে অসম বয়সে বিয়ের একাধিক উদাহরণ আছে। তাদের সংসার সুখের হলেও স্বজনদের নিকট থেকে অসম বিয়ে নিয়ে নেতিবাচক আচরণ পেয়েছেন।

বিশেষ করে , স্ত্রীর বয়স স্বামীর চেয়ে বেশি হলে, ওই দম্পতিকে স্বাভাবিক বলে মনে করা হয় না। যদিও স্বামীর বয়স স্ত্রীর দ্বিগুণ হলে তা সামাজিকভাবে অনেকটা সহজভাবে মেনে নেওয়া হয়।

বিবিসি এ ধরনের অসম বয়সী দুই দম্পতির খবর জানিয়েছে। এদের মধ্যে এক দম্পতির মধ্যে স্ত্রী এডনার বয়স ৭৯ বছর এবং স্বামী সাইমনের বয়স ৩৮ বছর। নয় বছর সংসার যাপনে নিজেদের মধ্যে কোনো সমস্যা তৈরি না হলেও স্বজনরা বিষয়টি সহজভাবে গ্রহণ করেনি।

suborna mustafa and badrul alam sound
বয়সের কারণে জনপ্রিয় অভিনেত্রী সুবর্ণা মুস্তফার সাথে নাট্যকার বদরুল আনাম সৌদের বিয়ে দেশজুড়ে ঝড় তুলেছিল।

একই অবস্থা ৮ বছর ধরে এক ছাদের নিচে বসবাসকারী ২৪ বছর বয়সী উইলিয়াম এবং ৫৩ বছর বয়সী মেরিলিনের ক্ষেত্রে।

আধুনিক গবেষণায় দেখা গেছে, স্বামী-স্ত্রীর বোঝাপড়াতে বয়স কোনো বাধা নয়, বরং মানসিক নৈকট্যের প্রয়োজন সবচেয়ে বেশি।

এ সম্পর্কে লাইফ ওয়ার্কস পার্সোনাল ডেভেলপমেন্ট ট্রেনিংয়ে কর্মরত মনস্তত্ববিদ লাভিনা আহুজা বলেন, স্বামী-স্ত্রী দুজনের বোঝাপড়াতে সংসার সুখের হয়। দুজনই সংসারে সমান ভূমিকা রাখলে এবং একের প্রতি অপরের বিশ্বাস দৃঢ় থাকলেই সংসার দীর্ঘস্থায়ী হয়।

তিনি আরও জানান, প্রয়োজনে স্বামী-স্ত্রী যে কেউ দায়িত্ব নিতে পারে, উভয়ের বোঝা-পড়া এমন নমনীয় হওয়া উচিত।

# খালিজ টাইমস অনুসারে সংক্ষেপে অনুলিখিত