সুনামিতে ভেসে যাওয়া ছেলে-মেয়ের সন্ধান

0
40
tsunami
সুনামি হারিয়ে যাওয়া সন্তানদের ফিরে পেয়ে পরিবার ফিরে পেয়েছে ইন্দোনেশিয়ার সেপ্টি রাগকৌতি।
tsunami
সুনামি হারিয়ে যাওয়া সন্তানদের ফিরে পেয়ে পরিবার ফিরে পেয়েছে ইন্দোনেশিয়ার সেপ্টি রাগকৌতি।

২০০৪ সালের ২৬ ডিসেম্বর। ইন্দোনেশিয়ায় হানা দেয় প্রলয়ঙ্কারী সুনামি। এতে দেশটির সুমাত্রা দ্বীপের আচেহ প্রদেশের ১ লাখ ৭০ হাজারের মতো লোক প্রাণ হারায়। ভারত মহাসাগরের পার্শ্ববর্তী কয়েকটি দেশে আরও ১০ হাজার লোকের প্রাণহানি ঘটে।

সম্প্রতি সেই কথা আবারও মনে করিয়ে দিল আচেহ প্রদেশের স্কুল পড়ুয়া ছোট্ট মেয়ে রওজাতুল জান্নাহ ও ছেলে আরিফ প্রতমা রাগৌতি। সুনামির ১০ বছর পর দুই ধাপে তাদের খুঁজে পেয়েছে পরিবার।

তারা দাবি করছেন, ২০০৪ সালের সুনামিতে হারিয়ে যাওয়া মেয়েকে খুঁজে পাওয়ার পর তাদের বিশ্বাস ছিল একদিন না একদিন ছেলেকেও খুঁজে পাবেন। পুনরায় সাজাতে পারবেন পরিবার।

বুধবার এক খবরে বার্তাসংস্থা গার্ডিয়ান জানায়, মঙ্গলবার বাবা সেপ্টি রাগকৌতি জানিয়েছেন,  আমাদের আশা আজ পূর্ণ হয়েছে। মেয়েকে পাবার পর হারানো ছেলে আরিফ প্রতমা রাগৌতিকেও খুঁজে পেয়েছি।

প্রসঙ্গত, গত জুন মাসে ওই পরিবারের এক আত্মীয় মেয়েটিকে একটি গ্রামের মধ্যে দেখতে পান। তিনি মেয়েটির কপালে একটি আঘাতের চিহ্ন দেখে চিনতে পারেন। মেয়েটি তখন স্কুল থেকে পায়ে হেঁটে বাড়ি ফিরছিল।

তিনি খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন, মেয়েটি সুনামির কবলে পড়ে আচেহ প্রদেশ থেকে ভেসে ভেসে ইন্দোনেশিয়ার দক্ষিণ-পশ্চিমের দূরবর্তী একটি দ্বীপে চলে যায়।

প্রসঙ্গত, সুনামির ঘটনা অবলম্বনে স্পেন চলচ্চিত্র নির্মাতা “ব্যায়োনা” ২০১২ সালে তৈরি করেন অসাধারণ এক চলচিত্র “দ্যা ইম্পসিবল” (অরিজিনাল টাইটেল “ল ইম্পসিবল”)। ছবিটিতে একই ধরনের একটি ঘটনা ফুটিয়ে তোলা হয়।

এস রহমান/