‘সব গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নিচ্ছে আ.লীগ’

0
46

Khleda_BNPআওয়ামী লীগ ক্ষমতা চিরস্থায়ী করতে একে একে সব গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গণবিরোধী জাতীয় সম্প্রচার নীতিমালা বাতিলের দাবিতে এক সমাবেশে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারকে অবৈধ দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, অবৈধ সরকারের বিরুদ্ধে আমাদের রুখে দাঁড়াতে হবে। এ আন্দোলন শুধু সম্প্রচার নীতিমালা বা বিচারপতি অপসারণের ক্ষমতা সংসদের হাতে দেওয়ার বিরুদ্ধে নয়। এটি ২০ দলের ক্ষমতায় যাওয়ার আন্দোলনও নয়। এ আন্দোলন দেশের অস্তিত্ব ও গণতন্ত্রের জন্য। অবৈধ সরকারকে ক্ষমতা থেকে বিতাড়িত করতে দলমত নির্বিশেষে সরকার বিরোধী আন্দোলনে অংশ নিতে হবে। এই আন্দেলনের মাধ্যমে সরকারকে ক্ষমতা থেকে বিতাড়িত করা হবে।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ মুখে গণতন্ত্রের কথা বললেও তারা কাজে গণতান্ত্রিক নয়। তারা নিজেদেরকে জনগণের প্রভূ মনে করে। তাই তারা ক্ষমতা চিরস্থায়ী করতে একে একে সব গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নিচ্ছে।

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার জন্য আমরা মুক্তিযুদ্ধ করি। কিন্তু আওয়ামী লীগ যখন ক্ষমতায় আসে তখন জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নিয়েছে। স্বাধীনতার পর তারা ক্ষমতায় এসেই বাকশাল প্রতিষ্ঠা করে। আজ আবার ভোটবিহীন নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় এসে বাকশাল প্রতিষ্ঠায় লিপ্ত হয়েছে।

মন্ত্রিসভায় বিচারপতি অপসারণ সংক্রান্ত বিল পাস হওয়া প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ক্ষমতা চিরস্থায়ী করতে সরকার এবার বিচার বিভাগের দিকে হাত দিয়েছে। অনির্বাচিত সাংসদ দিয়ে গঠিত সংসদের হাতে বিচারপতিদের অপসারণের ক্ষমতা দিতে যাচ্ছে তারা।

বিএনপির ঢাকা মহানগর আহ্বায়ক ও স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এমকে আনোয়ার, গয়েশ্বর রায়, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির অধ্যাপক মুজিবল হক, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থ প্রমুখ।

এমআই/