শেয়ারে বিনিয়োগ করে লোকসানে স্কয়ার

0
94
Square_pharma
স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস
Square_pharma
স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস

পুঁজিবাজারে তালিকভুক্ত ওষুধ ও রসায়ন খাতের কোম্পানি স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালসের আয়ে প্রবৃদ্ধি বজায় আছে। সর্বশেষ প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) কোম্পানিটির সমন্বিত আয় (সহযোগী প্রতিষ্ঠান বা সাবসিডিয়ারি কোম্পানির আয়সহ) বেড়েছে ৫ কোটি ৬০ লাখ টাকা বা প্রায় ৪.২১%। এ সময়ে শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ৮৮ পয়সা। গত বছরের তুলনায় বেড়েছে ১২ পয়সা।

গত ৩০ জুন সমাপ্ত প্রান্তিকে স্কয়ার ফার্মা ১৩৮ কোটি ৮০ লাখ টাকা নিট মুনাফা করেছে। গত বছর এই সময়ে মুনাফার পরিমাণ ছিল ১৩৩ কোটি ২০ লাখ টাকা।

আলোচিত প্রান্তিকে স্কয়ার ফার্মার আয় আরও বাড়তে পারতো। কিন্তু পণ্য বিক্রির প্রবৃদ্ধির চেয়ে অধিক হারে বিক্রি সংশ্লিষ্ট ব্যয় বাড়ায় সেটি হয়নি। এছাড়া সাবসিডিয়ারি কোম্পানির লোকসানের কারণেও স্কয়ার ফার্মার আয় কিছুটা কমেছে।

এপ্রিল থেকে জুন পর্যন্ত সময়ে কোম্পানিটি ৬৫০ কোটি ৩৪ লাখ টাকা মূল্যের ওষুধ বিক্রি করেছে। আগের বছরের একই সময়ে বিক্রির পরিমাণ ছিল ৫৫৯ কোটি ৬২ লাখ টাকা। বিক্রি বেড়েছে প্রায় ১৬%। অন্যদিকে ওষুধ বিক্রিতে ব্যয় বেড়েছে প্রায় ২২%। এ ব্যয় ২৯৪ কোটি টাকা থেকে বেড়ে ৩৫৫ কোটি টাকা হয়েছে।

ওষুধ বিক্রির বাইরে অন্যান্য খাত থেকে আয় না বাড়লে প্রবৃদ্ধি হয়ে যেতো ঋণাত্মক। আলোচিত প্রান্তিকে স্কয়ারের মুনাফা বেড়েছে ৫ কোটি ৬০ লাখ টাকা। এ সময়ে অন্যান্য খাত থেকে থেকে আয় হয়েছে সহযোগী প্রতিষ্ঠানগুলোকে দেওয়া ঋণের সুদ, প্রাপ্ত লভ্যাংশ ও ব্যাংক থেকে প্রাপ্ত সুদ।

অন্যদিকে আলোচিত সময়ে দীর্ঘমেয়াদী ঋণ কমেছে প্রায় ১১.৩৭%। গত ৩০ জুনে ঋণের স্থিতি ছিল ১১৮ কোটি ৩৬ লাখ টাকা। এ বছর ৩০ জুন শেষে হয়েছে ১০৪ কোটি ৯০ লাখ টাকা। এক বছরের ব্যবধানে ঋণ কমেছে ১৩ কোটি ৪৬ টাকা।

আগের বছর মোট বিক্রির ওপর ১৯.৮১% নিট মুনাফা হয়েছিল। এবার তা কমে হয়েছে ১৭.৮৫%।

শেয়ারে বিনিয়োগ করে জুন পর্যন্ত লোকসানে ছিল স্কয়ার ফার্মা। ৩০ জুন পর্যন্ত আনরিয়ালাইজড লোকসানের পরিমাণ ছিল ৮ কোটি ৪২ লাখ টাকা। আগের বছর একই সময়ে শেয়ারে বিনিয়োগ থেকে ৫ কোটি ৮৫ লাখ টাকা মুনাফা হয়েছিল।

অবশ্য এ লোকসান স্কয়ার ফার্মার সহযোগী প্রতিষ্ঠান বা সাবসিডিয়ারি কোম্পানি। স্কয়ার বরং মুনাফায় ছিল। গত ৩০ জুন পর্যন্ত কোম্পানিটির আনরিয়ালাইজড মুনাফা ছিল ৩৬ কোটি ৫০ লাখ টাকা। আর বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৮০ কোটি ৭৩ লাখ টাকা।

জিইউ