শিগগিরই ডাক্তার-রোগী সুরক্ষা আইন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

0
38
health
health
রোববার বিকেলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে(ডিআরইউ) সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। ছবি তুলেছেন খালেদুল কবির নয়ন।

ডাক্তার-রোগীদের দুরত্ব কমাতে ও স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে খুব শিগগিরই ডাক্তার-রোগী সুরক্ষা আইন আলোর মুখ দেখবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

রোববার বিকেলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে(ডিআরইউ) সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি(ডিআরইউ) এই মতবিনিময় সভার আয়োজন করে।

সদ্য নিয়োগপ্রাপ্ত চিকিৎসকদের নিজ নিজ জেলায় পোস্টিং দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে  জানিয়ে নাসিম বলেন, তারা নিজেদের এলাকায় থাকলে রোগী ও ডাক্তার উভয়ের জন্য ভালো হবে। এতে রোগীরা ডাক্তারদের কাছে তাদের সমস্যাগুলি নির্বিঘ্নে বলতে পারবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, গ্রামের অবকাঠামোগত উন্নয়ন হয়েছে। গ্রাম এখন শহরের মত উন্নত। প্রত্যন্ত অঞ্চলেও উন্নতমানের বেসরকারী হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা হয়েছে। চিকিৎসকরা গ্রামেও শহরের মত বাড়তি আয় করতে পারবে। তাই তাদেরকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতে থাকার জন্য অনুরোধ জানাই।

নিয়োগ প্রাপ্ত ডাক্তার সতর্কবানী দিয়ে তিনি বলেন, নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত চিকিৎসকরা রোগীদের নিয়মিত সেবা দিচ্ছে কি-না তা মনিটরিং করার জন্য কমিটি গঠন করা হবে। এমন কি ঢাকা বসেই এর মনিটরিং হবে।

তবে সদ্য নিয়োগপ্রাপ্ত চিকিৎসকদের পোস্টিং ও তাদের কর্মপরিবেশ নিশ্চিত করাই এখন মন্ত্রীর বড় চ্যালেঞ্জ বলে জানান তিনি।

দরকার না হলেও সরকারি অর্থে বহু চিকিৎসা সরাঞ্জামাদি ও যন্ত্র কেনা হয়, যেগুলো অলস পড়ে থাকে- এ বিষয়ে কি পদক্ষেপ নেওয়া হবে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, অপ্রয়োজনে হাসপাতালগুলোতে আর কোনো যন্ত্রপাতি কেনা হবে না। প্রত্যেকটা হাসপাতালে এ বিষয়ে নির্দেশনা দেওয়া হবে।

ইবোলা ভাইরাস সম্পর্কে কি ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ইবোলা সম্পর্কে আমরা সজাগ। স্থল, নৌ, আকাশ সব পথে কড়া নজরদারির ব্যবস্থা করা হয়েছে। এখনও শান্তিরক্ষা মিশনে যোগ দেওয়া কোনো সেনাকে এই ভাইরাসে আক্রমণ করছে এমন কোনো সংবাদ পাওয়া যায়নি।

ইউনাইটেড হাসপাতালে টাকার জন্য লাশ আটকিয়ে রাখা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এটা অত্যন্ত অমানবিক। বেসরকারী হোক আর সরকারী হোক প্রত্যকটা হাসপাতারের মূল লক্ষ্য হতে হবে চিকিৎসা সেবা।  কিন্তু বেসরকারী হাসপাতালগোতে রোগীর গলাকাটা টাকা নিলে সেখানে রোগীরা যাবে না।

১৫ আগস্ট খালেদা জিয়ার জন্ম দিবস পালন সম্পর্কে নাসিম বলেন, জাতীয় শোক দিবসে যারা জন্মদিন পালন করে তাদের রাজনীতি করার কোনো অধিকার নাই।

মধ্যবর্তী নির্বাচনের কোনো সম্ভাবনা নেই উল্লেখ করে নাসিম বলেন, সংবিধানের কোথাও মধ্যবর্তী নির্বাচনের কথা বলা নাই। আগামি ১৯সালে সব দলের অংশগ্রহণে সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে।

গাজায় প্রতিনিধি পাঠাবে ১৪ দলের এমন ঘোষণার এক মাস পার হলেও এখনও কোনো পদক্ষেপ কেন নেওয়া হয়নি এমন প্রশ্নের উত্তরে নাসিম বলেন, এটা একটা সেনসেটিভ বিষয়। সেখানে কি পাঠানো হবে, কাদের পাঠানো হবে সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতেই একটু দেরি হচ্ছে। তবে অবশ্যই প্রতিনিধি পাঠানো হবে।

১৫ আগস্টকে কেন্দ্র করে দেশের বিভিন্ন স্থানে চাঁদাবাজি করা হয়েছে এ বিষয়ে জানেন কি-না সাংবাদিকদের এই প্রশ্নে তিনি বলেন, চাঁদাবাজি করা হয়েছে বিষয়টা সঠিক নয়। আওয়ামী লীগের প্রত্যেকটা দলীয় পোগ্রামের জন্য নিজস্ব বাজেট থাকে। যারা চাঁদাবাজী করে তারা কোনো দলের নয়।

এ সময় ডিআরইউর সভাপতি শাহেদ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস খান উপস্থিত ছিলেন।

জেইউ/এমআই