বিকিনি বিচে প্রবেশমূল্য!

0
47
bikini beach

bikini beachভারতের গোয়ায় বিকিনি বিচ তৈরি এবং প্রবেশ মূল্য ধার্য নিয়ে নতুন বিতর্কের শুরু হয়েছে। সম্প্রতি রাজ্যটির এক বিধায়ক বিকিনি বিচ তৈরি করে ১০০০ থেকে ২০০০ টাকা প্রবেশ মূল্য ধার্য করার প্রস্তাব দেওয়ার পর থেকে এ বিতর্কের সূত্রপাত হয়।

রোববার এক খবরে আনন্দবাজার জানিয়েছে, রাজ্যে ক্ষমতাসীন জোটের অন্যতম শরীক দল মহারাষ্ট্রবাদী গোমন্তক পার্টির বিধায়ক লাভু মামলাতড়ার এ প্রস্তাব দেন।

বিধানসভার বৈঠকে তিনি বলেন, গোয়ায় বিশেষ একটি বিকিনি বিচ তৈরি করা যেতেই পারে। আর এখানে আসার জন্য ১০০০ থেকে ২০০০ টাকা প্রবেশ মূল্য ধার্য করার কথা ভাবা যেতে পারে।

তার দাবি, নতুন  এই ব্যবস্থায় যে শুধু গোয়ার পর্যটন শিল্পে উন্নতি হবে তা-ই নয় বরং সরকারের আয়ও বাড়বে।

এমন প্রস্তাবের পর তার ওপর বেজায় চটেছে রাজ্যটির নারী আন্দোলন কর্মীরা।

এ সম্পর্কে নারী আন্দোলন কর্মী অ্যানি রাজা বলেছেন, এমন কথাবার্তায় নারীদের সম্মানহানি হচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রীকে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

এ দলে যোগ দিয়েছে ভারতের অন্যতম প্রধান দল কংগ্রেসও। গোয়ায় দলটির মুখপাত্র দুর্গাদাস কামাত এমন মন্তব্যকে হাস্যকর অভিহিত করেছেন।

তিনি বলেন, এমন কিছু মন্তব্য করে নারী স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা হচ্ছে। তার আক্ষেপ, এই ধরনের মন্তব্যে মানুষের মনে গোয়া সম্পর্কে ভুল ধারণা তৈরি হচ্ছে।

এদিকে বিতর্ক শুরুর পরপরই ভোল পাল্টে ফেলেছেন বিধায়ক লাভু মামলাতড়া। তিনি বলেন, আপনারা কি বুঝতে পারছেন না, আমি এটা বিদ্রুপ করেই বলছি।

রাজ্য সরকার অবশ্য মাথা ঘামাচ্ছে না এ বিতর্ক নিয়ে। এ সম্পর্কে গোয়ার পর্যটন মন্ত্রী দিলীপ পারুলেক বলেন, প্রত্যেক বিষয়েই সবার নিজস্ব মতামত থাকতে পারে। বিধানসভায় উনি কী বলেছেন, সেটা তার ব্যক্তিগত মতামত। এতে সরকারের কিছু করার নেই।

দুর্গাদাস কামাত অবশ্য এমন প্রস্তাবের সাথে বিজেপির সরকারের যোগসূত্র খুঁজে পাচ্ছেন। তিনি বলেন, নরেন্দ্র মোদী ক্ষমতায় আসার পরই চারিদিকে এমন মন্তব্য করছেন লোকজন।

এর আগে গত মাসে গোয়ার পূর্তমন্ত্রী সুদিন দাভলিকর বলেছিলেন, আমি মহিলাদের কাছে অনুরোধ করছি, গোয়ায় যেন তারা কেউ মদ্যপান না করেন। রাতে ছোট পোশাক পরে পাবে গিয়ে নাচানাচি এবং মদ খাওয়াও ভাল নয়।

এই মন্তব্যের পরে তাকেও তীব্র সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল।