‘সরকারকে জনগণের কাছে নতি স্বীকারে বাধ্য করা হবে’

0
43
মির্জা ফখরুল
ফখরুল ইসলাম আলমগীর (ফাইল ছবি)
মির্জা ফখরুল
ফখরুল ইসলাম আলমগীর (ফাইল ছবি)

গণতন্ত্রের স্বার্থে সরকারকে জনগণের কাছে নতি স্বীকার করতে বাধ্য করা হবে বলে জানিয়েছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ন্যাশনাল ডিমোক্রেটিক পার্টি (এনডিপি) আয়োজনে ‘জাতীয় সম্পচার নীতিমালা-১৪ এর বাস্তায়ন মানেই সংবাদপত্রের তথা গণতন্ত্রের কন্ঠরোধ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় এ মন্তব্য করেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, বর্তমানে সরকারের পায়ের তলায় মাটি নেই। বাংলাদেশের মানুষ কখনই ভুল করে না। কোনো স্বৈরাচারী সরকারকে মেনে নেয় নি তারা। এই স্বৈরাচারী সরকারকেও জণগণ মেনে নিবে না। মুক্তিকামী জনগণ আন্দোলনের মাধ্যমে এ সরকারের পতন ঘটাবেই।

তিনি বলেন, সরকার জনগণ বিছ্ন্নি। জণগণের ওপর তাদের কোনো আস্থা নেই। তাই সরকার গায়ের জোরে ও বন্দুক দিয়ে ক্ষমতায় থাকতে চায়। কিন্তু এটি অতীতে কেউ পারে নি এ সরকারও পারবে না।

তিনি আরও বলেন, এখন সারা বিশ্বে গণতন্ত্রের জয়গান। এজন্য সরকার কৌশলে গণতন্ত্রের আবরণে বাকশাল প্রতিষ্ঠা করছে। তাই সরকার বিচার বিভাগ, আইনশৃংখলা বাহিনী ও সংবাদপত্রের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করছে। এরই ধারাবাহিকতায় সংবাদপত্রের কন্ঠ রোধ করতে সম্প্রচার নীতিমালা তৈরি করেছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, সরকার যতি বাকশাল প্রতিষ্ঠা করতে চায় তবে কেন আওয়ামী লীগ নির্বাচনী ইশতিহারে এটি উল্লেখ করে। জণগণকে ফাঁকি দিতে গেলে সরকার নিজেই নিজের ফাঁদে পড়ে যাবে।

দলীয় কার্যালয় অবরুদ্ধ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সরকার এমন এক রাষ্ট্র ব্যবস্থা সৃষ্টি করেছেন, যেখানে দলের নেতার জন্মদিন পালনে দলীয় কার্যালয়ে নেতাকর্মীদের প্রবেশ করতে বাধা দেওয়া হচ্ছে।

সরকারকে দ্রুত নির্বাচন দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বিএনপির এই শীর্ষ নেতা বলেন, এখনো সময় আছে। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে দ্রুত নির্বাচন দিন। নয়তো জনগণ আপনাদের ক্ষমা করবে না।

ন্যাশনাল ডিমোক্রেটিক পার্টির সভাপতি খন্দকার গোলাম মোর্ত্তজার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, এনডিপির মহাসচিব আলমগীর মজুমদার, ন্যাপের চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গনি প্রমুখ।

এমআই/ এএসএ/