শাহবাগে হামলায় আহত যুবকের মৃত্যু

0
35
SiddiQue Bazar Bongshal
পুরান ঢাকার বংশালের মানচিত্র। ফাইল ছবি
SiddiQue Bazar Bongshal
পুরান ঢাকার বংশালের মানচিত্র। ফাইল ছবি

রাজধানীর শাহবাগে আজিজ সুপার মার্কেট এলাকায় হামলায় আহত তিন ভাইয়ের মধ্যে একজনের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে ওই হামলার ঘটনার জন্য ৫৭ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম আক্তার ও তার সহযোগীদের দায়ী করেছেন নিহতের বড় ভাই।

নিহত যুবকের নাম মো. গিয়াস উদ্দিন রাজু (৩৩)। তার ছোট ভাই আদনান আবেদীন বাবু (৩০) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বড় ভাই জয়নাল আবেদীনও হামলাকারীদের মারধরের শিকার।

জয়নাল জানান, রাজু একজন কম্পিউটার প্রকৌশলী। আর বাবু টেক্সটাইল প্রকৌশলী।

শাহবাগ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. হাবিল হোসেন বলেন, আর্থিক লেনদেন নিয়ে বিরোধের জেরে এ ঘটনা ঘটেছে বলে তারা জানতে পেরেছেন।

জয়নাল বলেন, রাজুর স্ত্রী রুমি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। রাতে সেখান থেকে বেরিয়ে রাজু আর বাবু আজিজের পাশে মেডিসিন মার্কেটের সামনে এক দোকানে চা খেতে গিয়ে হামলার শিকার হন।

“যুবলীগ নেতা আক্তারের সহযোগী রুবেলের কাছে ৩৫ হাজার টাকা পেত রাজু। ওই টাকা চাওয়ায় গতকাল বৃহস্পতিবার তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। পরে মেডিসিন মার্কেটের সামনে তারা আমার ভাইদের ওপর হামলা চালায়।”

তিনি জানান, হামলাকারীরা রাজুর মাথা ও পিঠে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপ দেয়। বাবুর পিঠে গুলি করে। হামলার পরপরই ঘটনাস্থলে গিয়ে নিজেও মারধরের শিকার হন বলে জানান জয়নাল।

গুরুতর আহত রাজু ও বাবুকে প্রথমে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর সেখান থেকে হাতিরপুলের ব্রাইটন হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার দুপুরে মারা যান রাজু।

জয়নাল আবেদীনের অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে পরিদর্শক হাবিল বলেন, “বিষয়টি আমরাও শুনেছি। তবে কোনো পক্ষ এখনো থানায় আসেনি।”

রাজুদের বাসা রাজধানীর সেন্ট্রাল রোডে। বাবার নাম সাব্বির আহমেদ। তারা আগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টাফ কোয়ার্টারে থাকতেন বলে জয়নাল জানান।