বিদেশিদের সঙ্গে বিয়ে টিকছে না সৌদিদের!

0
66
divorce.
ফাইল ছবি
divorce.
ফাইল ছবি

বিদেশি নাগরিকদের সঙ্গে সৌদি নাগরিকদের বিয়ে হলেও সে সম্পর্ক বেশিদিন টিকছে না। সৌদি আরবের সাংস্কৃতিক ও আইনি কাঠামোর কারণে এই সঙ্কট তৈরি হয়েছে।

এক খবরে শুক্রবার সৌদি আরবের প্রভাবশালী পত্রিকা আরব নিউজ জানিয়েছে, সৌদি নাগরিক ও বিদেশি দম্পতিদের মধ্যে চার বছরে ৩২ শতাংশ বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটেছে।

দেশটির বিচার মন্ত্রণালয় সম্প্রতি জানিয়েছে, ২০০৭ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত ১২ হাজারেরও বেশি সৌদি পুরুষ এবং ৯ হাজার ৪০০ নারী বিদেশিকে বিয়ে করেন। এর মধ্যে ২৩ শতাংশ পুরুষ তাদের স্ত্রীদের তালাক দিয়েছেন। অন্যদিকে ৯ শতাংশ নারী তাদের স্বামীকে তালাক দিয়েছেন।

প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, বিদেশি পুরুষদের ঔরসজাত সন্তানদের নিয়ে এখন বিপাকে সৌদি নারীরা। কারণ জন্মের সময় সন্তানদের সরকারিভাবে নিবন্ধন করেননি এই দম্পতি। ফলে তাদের লালন-পালন নিয়ে সংকটে ভুগছেন তারা।

এছাড়া সৌদি নারীদের গর্ভে জন্ম নেওয়া সন্তানদের মায়ের পরিচয়ে জাতীয় পরিচয়পত্র, জন্ম সনদ, পাসপোর্ট পেতে ঝামেলা হচ্ছে। এমনকি চাকরি পেতেও পড়তে হচ্ছে প্রশাসনিক জটিলতায়।

সন্তান এবং বিদেশি বাবারাও সরকারি খাতে কোনো পদক্ষেপ নিতে পারছেন না। কারণ তারা বিদেশি হিসেবে পরিচিত।

প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়, ফলে এসব সন্তান সৌদি আরবে তাদের মায়েদের সম্পত্তির অংশীদার হতে পারেন না। এমনকি পড়াশোনার ক্ষেত্রেও তাদেরকে দেশটির শিক্ষাবৃত্তি থেকে বঞ্চিত হতে হয়।

আব্দুল্লাহ নামে ৪৮ বছর বয়সী এক সৌদি নাগরিক জানিয়েছেন, বিদেশি মানুষকে বিয়ের পর যখন তিনি দেশে ফেরেন তখন তাকে সামাজিক ও আইনগত বিভিন্ন সমস্যায় পড়তে হয়।

আরব নিউজ আরও জানায়, ২০১২ সালে এসব দম্পতির সন্তানদের বেসরকারি চাকরি করার অনুমতি দিয়েছে সরকার। তারপরও নতুন আইনের অনেকেই সুযোগ-সুবিধা নিতে পারছেন না তারা।

৫২ বছর বয়সী মরক্কোর এক নারী আরব নিউজকে বলেন, আমার সৌদি স্বামী ৩ সন্তান রেখে মারা গেছেন। আমি এখনও সৌদির নাগরিকত্ব পাইনি।

তিনি বলেন, আমি বিষয়টি নিয়ে একাধিকবার স্বরাষ্ট মন্ত্রণালয়ে গিয়েছি। কিন্তু কোনো বারই এ নিয়ে তারা কথা বলতে রাজি হয়নি।