বর্ষণ আর জোয়ারে ভাসছে বন্দরনগরী

0
34

ctgrainপূর্ণিমার প্রভাবে জোয়ার আর দুইদিনের টানা বর্ষণের ফলে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে বন্দর নগরী চট্টগ্রামে। কোথাও কোথাও হাঁটু থেকে কোমর পর্যন্ত পানি জমেছে; চরম দুর্ভোগে পড়েছে নগরবাসী।

নগরীর আগ্রাবাদ, হালিশহর এলাকা ছাড়াও নগরীর অক্সিজেন, হামজারবাগ, মুরাদপুর, চকবাজার, পাঁচলাইশ, ডিসি রোড, আাতুরার ডিপো, বহদ্দারহাট, শুলকবহর, কাতালগঞ্জ, নাসিরাবাদ, বায়োজিদ, ২ নম্বর গেট ষোলশহর, খাজা রোড, চান্দগাঁও, মোহরা, বাকলিয়া, চাক্তাই রাজাখালি, দেওয়ানবাজার, ডবলমুরিং, সিডিএ, হালিশহর, পাহাড়তলী, সরাইপাড়া, ও সাগরিকা, কাঁচারাস্তার মাথাসহ নগরীর আরো কমপক্ষে ২০ এলাকা বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে।

রাস্তা দিয়ে বাস কিংবা ট্রাক চলাচল করলে নদীর মতো ঢেউ সৃষ্টি হচ্ছে। এতে তলিয়ে যাচ্ছে দোকান পাটও। জলাবদ্ধতার ফলে আগ্রাবাদ ও হালিশহর এলাকায় জলাশয়ের মাছ  রাস্তায় এসে পড়েছে। আর এই সুযোগে মাছ ধরার কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়ছে কেউ কেউ ।

জলাবদ্ধতার মধ্যে ট্রাক ও বাস চলাচল করতে পারলেও পারছে না রিকশা কিংবা সিএনজিচালিত হালকা যানবাহন। জলাবদ্ধতার ফলে ড্রেনের ময়লা-আবর্জনা রাস্তায় ওঠে আসায় দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে।

এসব এলাকায় হাঁটু থেকে কোমর পর্যন্ত পানি রয়েছে। অধিকাংশ এলাকায় রিকশা , সিএনজি চালিত অটোরিকশা পর্যন্ত চলাচল করতে পারছে না। বাস, ট্রাক্সিসহ অন্যান্য গণপরিবহন কমে যাওয়ায় পায়ে হেঁটে গন্তব্যে যাচ্ছেন নগরবাসী।

জলাবদ্ধতায় ফলে দেশের সর্ববৃহৎ ভোগ্যপণ্যের পাইকারী বাজার চাক্তাই-খাতুনগঞ্জ বাজারে কমে গেছে বেচা-কেনা। গুদাম ও দোকানে পানি ঢুকে পেঁয়াজ-আদাসহ বিভিন্ন পণ্য নষ্ট হচ্ছে।

চাক্তাই-খাতুনগঞ্জ বাজার সমিতির সাধারণ সম্পাদক ছগির আহমদ জানান, বৃষ্টি আর জলাবদ্ধতার ফলে বাজারের কেনা-বেচা প্রায় বন্ধ রয়েছে। পঁচে যাচ্ছে পেঁয়াজ, আদার মতো বেশ কয়েকটি পণ্য।

চাক্তাই ও রাজখালী খাল সংস্কারের দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, এসব খাল ভরাট হয়ে যাওয়ার ফলে অল্প বৃষ্টিতেই এই এলকা ডুবে যায়। তাছাড়া জোয়ারের সময় পানি বাজারের রাস্তাঘাটসহ দোকানে প্রবেশ করে।

বন্দর সূত্র জানায়, বৃষ্টির কারণে বন্দরের বহিঃনোরঙ্গরে খাদ্য পণ্য খালাস বিঘ্নিত হচ্ছে। শুক্রবার সকালের জোয়ারের সময় কোনো জাহাজ বন্দরের জেটিতে ভিড়তে পারেনি । তবে বন্দরের অভ্যন্তরীণ কার্যক্রম স্বাভাবিক রয়েছে ।

পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিসের পূর্বাভাস কর্মকর্তা বিশ্বজিৎ চৌধুরী অর্থসূচককে জানান, গেল ২৪ ঘণ্টায় ( শুক্রবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত ) নগরীতে বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ১১৭ দশমিক ১ মিলিমিটার। আরও দু-তিনদিন এমন মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হতে পারে।