‘মোবাইল ব্যাংকিংয়ে উদাহরণ সৃষ্টি করেছে বাংলাদেশ’

0
50
BD Bank 2
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের জাহাঙ্গীর আলম কনফারেন্স হলে বাংলাদেশ ব্যাংক ডাটা ওয়্যারহাউজের (ইডিডব্লিউ) উপস্থাপনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন গভর্নর আতিউর রহমান।

মোবাইল ব্যাংকিংয়ে বাংলাদেশ খুব কম সময়ে অনেক বেশি সাফল্য অর্জন করেছে; যা অন্যান্য দেশের কাছে উদাহরণ হতে চলেছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান।

BD Bank 2
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের জাহাঙ্গীর আলম কনফারেন্স হলে বাংলাদেশ ব্যাংক ডাটা ওয়্যারহাউজের (ইডিডব্লিউ) উপস্থাপনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন গভর্নর আতিউর রহমান।

বুধবার দুপুরে বাংলাদেশ ব্যাংক ডাটা ওয়্যারহাউজের (ইডিডব্লিউ) উপস্থাপনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে গভর্নর এ তথ্য জানান। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের জাহাঙ্গীর আলম কনফারেন্স হলে আয়োজিত এ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর নাজনীন সুলতানা।

গভর্নর আতিউর রহমান বলেন, মোবাইল ব্যাংকিংয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক আগামী ২/১ মাসের মধ্যেই বিশ্বে ১ নম্বর অবস্থানে পৌঁছবে। ব্যাংকিং অ্যাসেটের দিক থেকে বাংলাদেশ ব্যাংক দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে।

ইডিডব্লিউ সম্পর্কে গভর্নর বলেন, ম্যানুয়েল পদ্ধতির পরিবর্তে সম্পূর্ণ অনলাইনে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠনগুলোর তথ্যাবলী সংগ্রহ, সংরক্ষণ ও স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে প্রয়োজনীয় বিশ্লেষণ ও তার ভিত্তিতে বিশ্ব ব্যাংকের সহায়তায় এ তথ্যভাণ্ডার স্থাপন করা হয়েছে। ফলে ব্যাংকিং সেক্টরকে পেপারলেস হওয়ার ক্ষেত্রে আরও এক ধাপ এগিয়ে নেওয়া হয়েছে।

তিনি জানান, ইডিডব্লিউ ব্যবহারের মধ্য দিয়ে সোনালী ব্যাংকের মতো বড় ধরনের অর্থনৈতিক কেলেংকারি খুব সহজেই প্রতিরোধ করা সম্ভব। বাংলাদেশ ব্যাংক তথ্য ব্যবস্থাপনার যে ব্যবস্থা শুরু করেছে তা ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে নিজেদের দুর্বল দিক চিহ্নিতকরণে সহায়তা করবে। ফলে ব্যাংকিং খাত আরও বেশি আধুনিক, চৌকশ ও দক্ষ হবে।

অনুষ্ঠানে সরকারি-বেসরকারী ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী, গবেষক, বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠানের নির্বাহীগণ এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ, ইডিডব্লিউ তৈরির কাজ ২০০৯ সালে শুরু হয়ে ২০১১ সালে শেষ হয়। এ তথ্যভাণ্ডার থেকে বিভ্ন্নি সরকারি-বেসরকারি ব্যাংকের নির্বাহী, বাংলাদেশ ব্যাকের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা এবং অর্থমন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা তথ্য সংগ্রহ করতে পারবেন। এছাড়া বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরাও এখান থেকে তথ্য পাবেন।

এসএই/এমই/