সেকেন্ডে ২ হাজার এইচডি মুভি!

0
44
videotransport
প্রতীকি ছবি

আগামীতে ইন্টারনেটে ডাটা আদান-প্রদানের অবিশ্বাস্য গতির আশাবাদ ব্যক্ত করেছে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো। তারা বলছে, ২০১৬ সালের মধ্যে ফাস্টার ক্যাবল স্থাপনের মাধ্যমে প্রতি সেকেন্ডে ৬০ টেরাবাইট ডাটা আদান-প্রদান সম্ভব। অর্থাৎ প্রতি সেকেন্ডে আপলোড বা ডাউনলোড করা যাবে ২ হাজার এইচডি (হাই ডেফিনেশন) মুভি।

videotransport
প্রতীকি ছবি

বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, ইন্টারনেটের অবিশ্বাস্য গতি বাড়াতে প্রশান্ত মহাসাগরে স্থাপন করা হবে ‘ফাস্টার ক্যাবল’। গুগল এবং অন্য পাঁচটি বৃহৎ প্রতিষ্ঠান যৌথভাবে প্রশান্ত মহাসাগরের নিচ দিয়ে এই ক্যাবল স্থাপনের কাজ করবে। অন্য প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- এশিয়ার বৃহত্তম টেলিযোগাযোগ প্রতিষ্ঠান চায়না মোবাইল, চায়না টেলিকম, গ্লোবাল ট্রান্সিট, কেডিডিআই এবং শিং টেল।

প্রতিবেদনে জানা গেছে, ফাস্টার নামক এই ক্যাবলটি জাপানের সাথে আমেরিকাকে সংযুক্ত করা হবে। আর এতে ব্যয় ধরা হয়েছে ৩০ কোটি ডলার।

ট্র্যান্স-প্যাসিফিক এই ফাইবার ক্যাবলের মাধ্যমে প্রতি সেকেন্ডে ৬০ টেরাবাইট ডাটা আদান-প্রদান করা যাবে। ক্যাবলটি ২০১৬ সাল নাগাদ চালু হবে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

ওই পাঁচটি কোম্পানি নিয়ে গঠিত কন্সোর্টিয়াম কমিটির সভাপতি ওহইয়ং চোই বলেন, ফাস্টার ক্যাবলের মাধ্যমে পৃথিবীর কয়েকশত সাবমেরিন ক্যাবলকে সংযুক্ত করা হবে। এর মাধ্যমে একটি গুরুত্বপূর্ণ কাঠামো তৈরি করা যাবে। যা পৃথিবীর ইন্টারনেট ও যোগাযোগ ব্যবস্থাকে আরও শক্তিশালী করবে। এটি হবে পৃথিবীর সর্ববৃহৎ রুট।

এই ক্যাবলটি জাপানের চিকুরা ও শিমা থেকে আমেরিকার পশ্চিম উপকূলীয় লস এঞ্জেলস, সান ফ্রান্সিসকো, পোর্টল্যান্ড এবং সেটলকে সংযুক্ত করবে।

উল্লেখ্য, বর্তমানে পৃথিবীর দ্রুততম ইন্টারনেট গতি পাওয়া যায় আমেরিকায়। যা প্রতি সেকেন্ড ১৫২ মেগাবাইট পর্যন্ত ডাটা আদান-প্রদান করে।

এমই/