এসএমই ঋণের বেশিরভাগ যাচ্ছে ব্যবসা খাতে

0
37
sme
ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প- ফাইল ছবি
sme
ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প- ফাইল ছবি

ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পোদ্যোগ বা এসএমই ঋণের মূল উদ্দেশ্য হলো দেশের ছোট ছোট শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা। কিন্তু আমাদের দেশে এ ঋণের বেশিরভাগই যাচ্ছে সেবা ও ব্যবসা খাতে। ফলে একদিকে যেমন নতুন প্রতিষ্ঠান তৈরি হচ্ছে না, অন্যদিকে নতুন নতুন উদ্যোক্তাও পাচ্ছে না দেশ।

বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানা গেছে।

প্রতিবেদনে দেখা যায়, চলতি বছরের প্রথম ৬ মাসে (জানুয়ারি-জুন) এসএমই খাতে মোট ২ লাখ ৬১ হাজার ১৮ জন উদ্যোক্তার মাঝে ঋণ বিতরণ করা হয়েছে ৪৭ হাজার ১৩০ কোটি টাকা। এর মধ্যে শিল্প খাতে ঋণ গেছে মাত্র ১২ হাজার ৯৫৯ কোটি টাকা যেখানে ব্যবসা খাতে উদ্যোক্তারা ঋণ নিয়েছেন ৩০ হাজার ৫০৬ টাকা আর সেবা খাতে গেছে ৩ হাজার ৬৬৪ কোটি টাকা।

শেষ তিন মাসে (এপ্রিল-জুন) বাণিজ্যিক ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো এ খাতে মোট ২৫ হাজার ২৫৫ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করেছে। এ সময়ে ঋণ নিয়েছে এক লাখ ৪৩ হাজার ১৩৯ জন উদ্যোক্তা। বিতরণকৃত এ ঋণ ২০১৪ সালের লক্ষ্যমাত্রার ২৮ দশমিক ৩৭ শতাংশ।

জানুয়ারি-মার্চে এই বিতরণ হার ছিল লক্ষ্যমাত্রার ২৪ দশমিক ৬০ শতাংশ। গত ছয় মাসে ঋণ বিতরণ হয়েছে লক্ষ্যমাত্রার ৫২ দশমিক ৯৪ শতাংশ। ২০১৪ সালে এ খাতে মোট ঋণ বিতরণের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৮৯ হাজার ৩০ কোটি টাকা।

তথ্যানুযায়ী, জানুয়ারি-জুন পর্যন্ত বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো ২ লাখ ৫৫ হাজার ৭৬ জন উদ্যোক্তাকে ৪৫ হাজার ৫৪১ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করেছে; যা গত বছরের একই সময়ের চেয়ে ৪ হাজার ৬৩৩ কোটি টাকা বা ১১ দশমিক ৩২ শতাংশ বেশি। এ সময়ে রাষ্ট্র মালিকানাধীন ও বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো যথাক্রমে তাদের লক্ষ্যমাত্রার ৫০ দশমিক ৫৮ শতাংশ ও ৫৬ দশমিক ৩৯ শতাংশ অর্জন করেছে।

২০১৪ সালের প্রথম ৬ মাসে রাষ্ট্র মালিকানাধীন ব্যাংকগুলো ২৩ হাজার ৮৮৬ জন উদ্যোক্তাকে ২ হাজার ৮৭৪ কোটি টাকা, বিশেষায়িত ব্যাংকগুলো ৮ হাজার ৭৯৩ জনকে এক হাজার ৬২২ কোটি, বেসরকারি ব্যাংকগুলো ২ লাখ ১৯ হাজার ২৩৮ জনকে ৪০ হাজার ৬০৬ কোটি ও বিদেশি ব্যাংকগুলো ৩ হাজার ১৫৯ জনকে ৪৩৮ কোটি টাকা ঋণ দিয়েছে।

আর এ সময়ে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো ৪ হাজার ২০৪ কোটি টাকা লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে ঋণ বিতরণ করেছে এক হাজার ৪৮৮ কোটি টাকা। তাদের উদ্যোক্তার সংখ্যা ৫ হাজার ৯৪২ জন।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের এসএমই অ্যান্ড স্পেশাল প্রোগ্রামস বিভাগের মহাব্যবস্থাপক মো. মাছুম পাটোয়ারী বলেন, ব্যাংকারদের এসএমই নীতিমালা ও রিপোর্টিং বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান এবং সারাদেশে উদ্যোক্তাদেরকে এসএমই উদ্যোগ গ্রহণ ও ব্যাংক ঋণের নিয়ম-নীতি বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। গভর্নর মহোদয়ের নির্দেশনা মোতাবেক উদ্যোক্তারা যেন সঠিক সময়ে সঠিক পরিমাণ ঋণ পান সে বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক মনিটরিং ব্যবস্থা আরও জোরদার করেছে। তাছাড়া বিভিন্ন সময়ে ব্যাংকারদের এসএমই ঋণ বিষয়ে সদা সজাগ থাকার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। এ কারণে এসএমই খাতে ঋণের পরিমাণ বাড়ছে বলে জানান তিনি।

এসএমই ঋণ ব্যবসা খাতে বেশি যাচ্ছে স্বীকার করে তিনি বলেন, তবে তা নারী উদ্যোক্তা তৈরি ও ক্ষমতায়নে ব্যবহৃত হচ্ছে।

এসএই/