লঞ্চডুবি: তেমন সাড়া মেলেনি গণশুনানিতে

0
44
Launch
মাওয়াঘাটের একশ’ গজ দূরে পদ্মায় তলিয়ে যায় পিনাক-৬ লঞ্চটি। ভোররাত পর্যন্ত ১১৫ জনের নাম নিখোঁজের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার লঞ্চ ও নিখোঁজ যাত্রীদের উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ছবি: মহুবার রহমান
Launch4
গত সপ্তাহে সোমবার বেলা ১১টায় মাওয়াঘাটের একশ’ গজ দূরে পদ্মায় তলিয়ে যায় পিনাক-৬ লঞ্চটি। পরদিন ভোররাত পর্যন্ত ১১৫ জনের নাম নিখোঁজের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। কান্নায় ভেঙে পড়েন নিখোঁজ ব্যক্তির স্বজনেরা। ছবিটি তুলেছেন মহুবার রহমান

মুন্সীগঞ্জের পদ্মায় লঞ্চডুবির ঘটনায় নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটির গণশুনানিতে তেমন সাড়া মেলেনি।

মঙ্গলবার সকাল ১১টা ৩৫ মিনিটে গণশুনানি শুরু হয়। শুনানিতে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী, বেঁচে যাওয়া যাত্রী ও স্থানীয় উদ্ধারকর্মীদের সাক্ষ্য নেওয়া হয়।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব নূর-উর-রহমানের নেতৃত্বে গঠিত তদন্ত কমিটি এই গণশুনানি করেন।

তদন্ত কমিটির সদস্যরা জানান, সোমবার লঞ্চ উদ্ধার তৎপরতা স্থগিত ঘোষণার পর মাওয়ার পদ্মা পাড়ে জেলা প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের কার্যক্রম গুটিয়ে ফেলার আগে মাইকিং করে গণশুনানিতে অংশ নিতে অনুরোধ জানানো হয়েছিল।

গণশুনানিতে তেমন কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি। এ সময় বেঁচে যাওয়া কয়েকজন যাত্রী, নিখোঁজ পরিবারের এক নারীসহ ৭ উদ্ধারকর্মী গণশুনানিতে সাক্ষ্য দিতে আসেন। বেঁচে যাওয়া যাত্রীরা লঞ্চডুবির বর্ণনা করেন।

ওই নারী জানান, লঞ্চডুবির ঘটনায় তার মেয়ে, মেয়ের জামাই এবং নাতি-নাতনিসহ চারজন নিখোঁজ রয়েছেন।

এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন কমিটির সদস্য সচিব ক্যাপ্টেন জসিম উদ্দিন, সদস্যদের মধ্যে মুন্সীগঞ্জের জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, বিআইডব্লিউটিসির প্রধান প্রকৌশলী আবদুর রহিম তালুকদার প্রমুখ।

উল্লেখ, গত সপ্তাহের সোমবার মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার কাওড়াকান্দি থেকে দুই শতাধিক যাত্রী নিয়ে মাওয়া আসার পথে পিনাক-৬ ডুবে যায়। এখনো তার কোনো হদিস মেলেনি।