সংশোধনের বাজারে কমেছে লেনদেনও

0
60
DSE-Down
সূচক পতন
DSE-Down
dse logo

টানা ৬ কার্যদিবস পর মঙ্গলবার মূল্য সংশোধন হয়েছে পুঁজিবাজারে। এদিন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে কমেছে সব ধরনের মূল্যসূচক। এমনকি লেনদেনও কমেছে উল্লেখযোগ্য হারে। অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও সব ধরনের মূল্য সূচক কমেছে।

বিশ্লেষকদের মতে, ঈদের ছুটির পর গত ৬ কার্যদিবস ধরে বাজার ঊর্ধ্বমুখীতে রয়েছে। মঙ্গলবার পুঁজিবাজারের সূচক ও লেনদেনের পতনকে তারা ইতিবাচক হিসাবেই দেখছেন। কারণ স্বাভাবিক পুঁজিবাজারে মাঝে মাঝে মূল্য সংশোধনের প্রয়োজন রয়েছে।

এখন সাইডলাইনে থাকা ক্ষুদ্র ও প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা বিনিয়োগ শুরু করেছে। তারা ফের সক্রিয় হয়েছেন বাজারে। অন্যদিকে ঋণ চাহিদা কমে যাওয়ায় কয়েকটি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানও পুঁজিবাজারের দিকে ঝুঁকেছে। এর ফলে বাজারে স্বাভাবিক আচরণ রয়েছে বলে মনে করেন তারা।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, মঙ্গলবার ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে মোট ৬৮১ কোটি ৩৭ লাখ টাকার শেয়ার। যা আগের দিনের তুলনায় ১০৮ কোটি ৮১ লাখ টাকার কম শেয়ার লেনদেন হয়েছে। গতকাল ডিএসইতে ৭৯০ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল।

এদিন ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৩৮ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৪ হাজার  ৫২৬ পয়েন্টে। শরীয়াহ বা ডিএসইএস সূচক ১২ পয়েন্ট  কমে অবস্থান করছে ‌ এক হাজার ৪৭ পয়েন্টে। একইভাবে ডিএস ৩০ সূচক ১৩ পয়েন্ট কমেছে। এই সূচক অবস্থান করছে এক হাজার ৬৮৮ পয়েন্টে।

মঙ্গলবার লেনদেন হওয়া ১১৪টি কোম্পানির শেয়ার দর বেড়েছে। লেনদেনে অংশ নিয়েছে ২৯৩ টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর কমেছে ১৪৯ টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩০টির।

এদিকে ডিএসইতে টাকার পরিমাণে লেনদেনের শীর্ষ দশ কোম্পানি হচ্ছে- এমজেএলবিডি, গ্রামীণ ফোন, স্কয়ার ফার্মা, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি লিমিটেড, অ্যাক্টিভ ফাইন, বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন, অ্যাপলো ইস্পাত, বেক্সিমকো এবং গোল্ডেনসন লিমিটেড।

অপরদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ৪৬ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। মঙ্গলবার সিএসই সার্বিক সূচক ৯৯ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৩ হাজার ৯৫৮ পয়েন্টে। সিএসইতে এই দিন মোট লেনদেন হয়েছে ২২৫টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৭৩টির, কমেছে ১২০টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩২টির।

অর্থসূচক/এসএ/এসএম