ফের নিপোর্টের পরিচালকের দুর্নীতি অনুসন্ধানে দুদক

0
49
Dudak
দুদকের লোগো

ট্রেনিংয়ের নামে সরকারি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে জাতীয় জনসংখ্যা গবেষণা ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের (নিপোর্ট) পরিচালক আনিসুল আউয়ালের বিরুদ্ধে ফের অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

সোমবার কমিশনের নিয়মিত বৈঠকে এ জন্য নতুন একজন কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়া হয় বলে জানায় দুদক সূত্র।

এর আগে তার বিরুদ্ধে একই অভিযোগের অনুসন্ধান করে দুদকের এক কর্মকর্তা। তবে তা যথাযত না হওয়ায় পুনরায় অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন।

সূত্রটি জানায়, ট্রেনিং না করানো সত্ত্বেও বিভিন্ন সময়ে ট্রেনিং করানোর কথা বলে ভূয়া কাগজপত্র তৈরি করে সরকারের প্রায় ২৫ লাখ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ আসে নিপোর্টের পরিচালক আনিসুল আউয়ালের বিরুদ্ধে। অভিযোগটি যাচাই-বাছাই করে তা অনুসন্ধানের জন্য দুদকের উপ-পরিচালক ড. নুরুল হককে দায়িত্ব দেওয়া হয়। পরে তিনি অনুসন্ধান শেষে প্রতিবেদন কমিশনে জমা দেন। কিন্তু তার এই প্রতিবেদন যথাযত না হওয়ায় পুনরায় অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় কমিশন। সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দুদকের উপ-পরিচালক হামিদুল হাসানকে অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা হিসাবে এবং পরিচালক ইয়াহিয়াকে তদারকি কর্মকর্তা হিসাবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা কর্মসূচী ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক আদর্শ প্রতিষ্ঠান তৈরির দিকে দৃষ্টি রেখে ১৯৭৭ সালে জাতীয় জনসংখ্যা গবেষণা ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট (নিপোর্ট) আত্মপ্রকাশ করে। নিপোর্ট স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন জেলা, উপজেলা এবং ইউনিয়ন পর্যায়ে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জ্ঞান ও দক্ষতা বৃদ্ধি ও মনোভাব পরিবর্তনের জন্য বিভিন্ন ধরনের প্রশিক্ষণ প্রদান করে থাকে।

এছাড়া নিপোর্টের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ কার্যক্রম হচ্ছে প্রজনন স্বাস্থ্য, শিশু স্বাস্থ্য, পুষ্টি ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মসূচী জোরদার করার জন্য কর্মসূচীভিত্তিক মূল্যায়নধর্মী এবং অপারেশনাল গবেষণা ও সার্ভে পরিচালনা করা এবং কর্মসূচী উন্নয়নের জন্য গবেষণার ফলাফল কার্যকরভাবে বিভিন্ন পর্যায়ে উপস্থাপন করা।