‘অর্গানিক পণ্যে আয় হতে পারে ৫ হাজার কোটি টাকা’

0
286
অর্গান চা বাগান- ফাইল ছবি
অর্গান চা বাগান- ফাইল ছবি
অর্গান চা বাগান- ফাইল ছবি

পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল মনে করেন, অর্গানিক পণ্য রপ্তানি করে বাংলাদেশ বছরে ৫ হাজার কোটি টাকা আয় করতে পারে।

রোববার রাজধানীর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরে বাংলাদেশ অর্গানিক প্রডাক্টস ম্যানুফ্যাকচারিং অ্যাসোসিয়েশন আয়োজিত এক কর্মশালায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, অর্গানিক পণ্য রপ্তানি করে বাংলাদেশ বছরে ৫ হাজার কোটি টাকা আয় করতে পারে। এ জন্য আমাদেরকে পণ্যের মান নির্ধারণের জন্য আন্তর্জাতিক মানদণ্ড নির্ধারণকরে দিতে হবে এবং একটি অ্যাক্রিডিটেনশন বোর্ডও গঠন করতে হবে।

তিনি বলেন, ১৯৯৯ সালে বিশ্ব বাজারে অর্গানিক পণ্যের রপ্তানি মূল্য ছিল ১৫ বিলিয়ন ডলার; যা ২০১২ সালে ৬৪ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়ায়। আগামী কয়েক বছরের মধ্যে এর মূল্য ১৩৮ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়াবে।

অর্গানিক পণ্য রপ্তানিকারক দেশগুলো নিয়ে আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, ১৬৪টি দেশ বর্তমানে সার্টিফাইড অর্গানিক পণ্য বিশ্বব্যাপী রপ্তানি করছে। এর অধিকাংশ দেশই আমাদের মতো স্বল্পোন্নত দেশ। কাজেই একটি কৃষিভিত্তিক দেশ হিসেবে বাংলাদেশের এক্ষেত্রে ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে।

কর্মশালায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. আসাদুজ্জামান। এতে বলা হয়, বর্তমানে অর্গানিক পণ্য রপ্তানিতে কেনিয়া, তানজানিয়া, ভুটান, শ্রীলংকা ও ভারত ভালো অবস্থানে রয়েছে। অনেক দেশের মোট জমির মাত্র ১ ভাগ অর্গানিক পণ্য উৎপাদনে সক্ষম হলেও অর্গানিক পণ্য উৎপাদনেও রপ্তানিতে তাদের বড় ভূমিকা রয়েছে। বাংলাদেশ অর্গানিক চিংড়ি, অর্গানিক চা, মুগডাল, সয়াবিন, সয়াফুডসহ কিছু অর্গানিক পণ্য রপ্তানি করছে।

বাংলাদেশে অর্গানিক চাষাবাদ সংক্রান্ত জাতীয় টাস্কফোর্সের আহ্বায়ক আহসান উল্লাহ বলেন, অর্গানিক পণ্য উৎপাদনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে অর্গানিক শস্য, যেমন- অর্গানিক সুগন্ধি চাল, অর্গানিক পাট, অর্গানিক মাছ ও অর্গানিক মাংসের উৎপাদনের ক্ষেত্রেই বেশি নজর দিতে হবে।

বাংলাদেশ অর্গানিক প্রডাক্টস ম্যানুফ্যাকচারিং অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আব্দুস সালাম বলেন, বাংলাদেশ বর্তমানে ২০০ মিলিয়ন ডলারের কৃষিপণ্য রপ্তানি করছে। অ্যাসোসিয়েশনের মাধ্যমে ইতোমধ্যে দেশের ১ লাখ একর জমিকে জৈব কৃষির আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশনাল অব অর্গানিক অ্যাগ্রিকালচারাল মুভমেন্টের সভাপতি আন্দ্রে নিল, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আব্দুল মান্নান প্রমুখ।

এইচকেবি/সাকি