নেতাজিকে ভারতরত্ন দেওয়ার কথা ভাবছে সরকার

0
117
subhash-chandra-bose
নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু (ফাইল ছবি)
subhash-chandra-bose
নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু (ফাইল ছবি)

নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুকে আবার ভারতরত্ন দেওয়ার কথা ভাবছে ভারতের নরেন্দ্র মোদি সরকার।

রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের (আরএসএস) শীর্ষ নেতারা চাইছেন, কংগ্রেস সরকার যেসব বিখ্যাত ব্যক্তিদের গুরুত্ব দেয়নি তাদের ভারতরত্ন দেওয়া হোক।

এই ‘অবহেলিত’ ব্যক্তিদের মধ্যে নেতাজির সঙ্গে বিজেপি নেতা অটলবিহারী বাজপেয়ী, হকির জাদুকর ধ্যানচন্দ, মদনমোহন মালব্য, গীতা প্রেসের প্রতিষ্ঠাতা হনুমান পোদ্দার এবং চিত্রকর রবি বর্মার নাম রয়েছে।

নেতাজিকে ১৯৯২ সালে মরণোত্তর ভারতরত্ন দেওয়ার সরকারি সিদ্ধান্ত হয়েছিল। কিন্তু নেতাজি অনুগামীরা সুপ্রিম কোর্টে একটা জনস্বার্থ মামলা দায়ের করে বলেন, কোন যুক্তিতে তাকে মরণোত্তর ভারতরত্ন দেওয়া হচ্ছে ?

তার মৃত্যুই তো নিশ্চিত নয়। সরকারের পক্ষ থেকে এমন কোন প্রমাণ দেওয়া যায়নি, যাতে প্রমাণ হয় যে, নেতাজি মারা গিয়েছেন। ঠিক এই কারণেই রেনকোজি মন্দির থেকে নেতাজির ‘চিতাভস্ম’ নিয়ে আসা সম্ভব হচ্ছে না। ফলে নেতাজিকে ভারতরত্ন দেওয়ার সেই সিদ্ধান্ত খারিজ করে দেয় সুপ্রিম কোর্ট।

তবে নেতাজিকে আবারও ভারতরত্ন দেওয়ার বিষয়টি মোদি সরকার বিবেচনা করছে বলে জানা গেছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ইতিমধ্যে নামের তালিকা তৈরি করেছে। এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

ভারতরত্ন দেওয়া হচ্ছে ১৯৫৪ সাল থেকে। প্রথম বছর চক্রবর্তী রাজা গোপালাচারি, সি ভি রামন ও সর্বপল্লী রাধাকৃষ্ণনকে ভারতরত্ন দেওয়া হয়। প্রথমে মরণোত্তর ভারতরত্ন দেওয়ার বিষয়টি ছিল না। পরে নিয়ম বদলিয়ে ১৯৬৬ সালে লালবাহাদুর শাস্ত্রীকে প্রথম মরণোত্তর ভারতরত্ন দেওয়া হয়। এ পর্যন্ত ৪৩ জনকে ভারতরত্ন দেওয়া হয়েছে, তার মধ্যে মরণোত্তর পেয়েছেন ১১ জন।