অজ্ঞাত ১২ লাশ দাফন শিবচরে, খোঁঁজ মেলেনি লঞ্চের

0
100
Launch
ফাইল ছবি

পদ্মায় লঞ্চডুবির ঘটনায় শনাক্ত না হওয়া ১২ জনের লাশ দাফন করা হয়েছে।শুক্রবার বিকেল মাদারীপুরের শিবচর পৌর কবরস্থানে তাদের লাশ দাফন করা হয়।

এদিকে ঘটনার ৫ দিন পরেও উদ্ধার করা যায়নি দুর্ঘটনা কবলিত পিনাক-৬ লঞ্চটি। শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত ৪০ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

শুক্রবার দুপুর দুইটার দিকে শিবচরের পাচ্চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে জানাজা অনুষ্ঠিক হয়।মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারসহ জেলার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা জানাজায় অংশ নেন।

পরবর্তী সময় শনাক্ত করার জন্য ওই ১২টি লাশের ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে বলে জানা যায়।

লঞ্চডুবির পর থেকেই নৌবাহিনীর উদ্ধারকারী দল- কোস্টগার্ড, ফায়ার ব্রিগেড, অনুসন্ধানী জাহাজ কান্ডারী-২ এবং সাইটস্ক্যান ‘সোনার’ ব্যবহার করে তিস্তা, সন্ধানী, আইটি ৯৭ ও ব-দ্বীপ নামে বেশ কয়েকটি অনুসন্ধান জাহাজ শুক্রবার সকাল থেকে ‘পিনাক-৬’-এর অনুসন্ধান করছে।

নৌবাহিনী সদরদপ্তরের উপ-পরিচালক কমান্ডার হাবিবুল আলম জানিয়েছেন, দুর্ঘটনাস্থলের আশপাশের ৫০ বর্গ কিলোমিটার এলাকায় অনুসন্ধান করার পর এখন নতুন করে অভিযান চালাচ্ছে তারা। ঘটনাস্থলে জরিপ-১০ পৌঁছানোর ফলে অনুসন্ধান কার্যক্রম আরও জোরদার হয়েছে।

বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান ড. শামসুদ্দোহা খন্দকার জানান, দুর্ঘটনাস্থলে প্রবল স্রোত এবং পানির গভীরতা প্রায় ৮০/৯০ ফুট। ঘূর্ণাবর্তের কারণে সেখানে গর্ত সৃষ্টি ও বালু জমা হচ্ছে। তাই লঞ্চটি দূরে সরে বালুর নিচে চাপা পরে থাকতে পারে। তাই শনাক্ত করা কঠিন হয়ে পড়েছে।

প্রসঙ্গত, গত সোমবার বেলা ১১টার দিকে কাওড়াকান্দি থেকে মাওয়া ঘাটে যাওয়ার পথে তীব্র স্রোতের মধ্যে ডুবে যায় লঞ্চ এমএল পিনাক-৬। এতে প্রায় ২৫০ জন যাত্রী ছিলেন।