সংসদে অনীহা শচীনের

0
58
tendulkar_mp
সাংসদ হিসেবে শপথ নিচ্ছেন শচীন টেন্ডুলকার (ফাইল ছবি)
ক্রিকেটের লিটল মাস্টার শচীন রমেশ টেন্ডুলকার; সারা জীবন প্রশংসায় সিক্ত হয়েছেন কাজের প্রতি নিষ্ঠা ও নিয়মানুবর্তিতার জন্য। কিন্তু এবার দায়িত্বের প্রতি অবহেলার জন্য সমালোচনার কাঁটা সহ্য করতে হচ্ছে ভারতীয় এই ক্রিকেট ঈশ্বরকে। টেন্ডুলকারের ক্রিকেটে যতটুকু ধ্যান-জ্ঞান, আগ্রহ সংসদের প্রতি যেন তার ততটুকুই বিরাগ।

tendulkar_mp
সাংসদ হিসেবে শপথ নিচ্ছেন শচীন টেন্ডুলকার (ফাইল ছবি)
পরিসংখ্যান বলছে, পার্লামেন্টে তিনি উপস্থিত হন না বললেই চলে। ২০১২ সালের জুন মাসে সংসদের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভার সম্মানিত সদস্য হওয়ার পর থেকে শচীনের সংসদে উপস্থিত হওয়ার হার খুবই কম। ২০১৩ সালে তিনি মাত্র তিনবার পার্লামেন্টে উপস্থিত হয়েছিলেন। এ বছর কোনো কার্যদিবসেই শচীনকে সংসদের উচ্চকক্ষে দেখা যায়নি। রাজ্যসভার সম্মানিত সদস্য হওয়ার পর থেকে শচীন কোনো সংসদীয় বিতর্কেও অংশ নেননি।

এ রকম আচরণের জন্য সমালোচনার কাঁটায় বিদ্ধ ভারতীয় এই ক্রিকেট ঈশ্বর। রাজ্যসভার সদস্য হিসেবে তার নির্বাচনের ওপর প্রশ্ন তুলেছেন বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা রাজীব শুক্লা।

তিনি বলেন, ‘গত সপ্তাহে শচীনের সঙ্গে এই বিষয়ে আমার কথা হয়েছে। তখন তিনি আমাকে সংসদে আসার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। কিন্তু তা সত্ত্বেও চলতি অধিবেশনে একদিনের জন্যও সংসদে পা রাখেননি টেন্ডুলকার। তিনি যদি অনুপস্থিতই থাকেন, তাহলে রাজ্যসভার সদস্য হিসেবে তার মনোনয়নের যুক্তি কোথায়?

শচীন টেন্ডুলকারের প্রসঙ্গ টেনে সমাজবাদী পার্টির এমপি নরেশ আগরওয়াল বলেন, ‘এই এমপিরা যেহেতু নির্বাচিত তাই তাদের সংসদে উপস্থিত হওয়া উচিত। কিন্তু আমি সংসদে কখনও তাকে (শচীন) দেখিনি।’

ইউএম/