প্রাধান্য পেয়েছে তোবার শ্রমিক ইস্যু

0
84
enewspaprer

enewspaprerআজ শুক্রবার দেশের বেশিরভাগ পত্রিকা তোবা গ্রুপের অনশনরত শ্রমিকদের নিয়ে লিড নিউজ করেছে। বকেয়া বেতন- ভাতার দাবিতে আন্দোলনরত পোশাককর্মী ও শ্রমিক নেতাদের গতকাল বৃহস্পতিবার উত্তর বাড্ডার কারখানার ভেতর থেকে জোর করে সরিয়ে দেয় পুলিশ। এতে পুলিশের সাথে সংঘর্ষ হয় শ্রমিকদের।

তবে তৈরি পোশাকশ্রমিকদের সংগঠন বিজিএমইএর আয়োজনে দুই মাসের বেতন নিতে হয় তাদের। যদিও তিন মাসের বকেয়া বেতন-ভাতা, ঈদ বোনাস ও ওভারটাইম একসঙ্গে দেওয়ার দাবিতে ঈদের আগের দিন থেকে অনশন করছিলেন তারা।

সেই সাথে দ্বিতীয় লিড নিউজের গুরুত্ব পেয়েছে পদ্মার লঞ্চডুবিকে নিহত যাত্রীদের লাশের খবর। তবে দুর্ঘটনার ৪দিন পরেও হদিস মেলেনি পিনাক-৬।

প্রথম আলোর লিড নিউজের শিরোনাম হলো-  ‘চাপ-পিটুনি, পরে বেতন’। এর টিকার হলো- চোখে পানি নিয়ে বাড়ি ফিরলেন তোবার শ্রমিকেরা। পত্রিকাটি দ্বিতীয় লিড নিউজের শিরোনাম হলো- ‘নাকে কাপড় চেপে স্বজনের খোঁজ’। এর টিকার হলো- আরও ১২ লাশ উদ্ধার, লঞ্চের হদিস মেলেনি।

কালের কণ্ঠের লিড নিউজ করেছে- ‘নিয়োগ পেয়েই মরিয়া তদবির ডাক্তারদের’। তোবা নিয়ে পত্রিকাটির দ্বিতীয় লিড নিউজ করেছে- ‘পুলিশ পিটিয়ে হটাল তোবার শ্রমিকদের’।

সমকালের লিড নিউজের শিরোনাম হলো- ‘ঘরে ঘরে কান্না’। তোবার শ্রমিক ইস্যু নিয়ে পত্রিকাটির নিউজের শিরোনাম হলো- তোবা শ্রমিকদের ওপর পুলিশের লাঠিচার্জ।

দৈনিক ইত্তেফাক লিড নিউজ করেছে- ‘তোবা গ্রুপের শ্রমিকদের অনশনে পুলিশের হামলা’। পত্রিকাটি দ্বিতীয় লিড নিউজ করেছে- স্বজনরাই খুঁজছেন লাশ।

ইংরেজি দৈনিক দ্য ডেইলি স্টার লিড নিউজ করেছে- Crackdown on Tuba workers. এর টিকার হলো- Cops drive them away from protest site, force them to take partial salaries.

দ্য ফিনান্সিয়ালের লিড নিউজের শিরোনাম হলো-Fresh move underway to help check capital flight. এছাড়া পত্রিকাটি তোবা নিয়ে ৩কলামের একটি ছবিসহ নিউজ দিয়েছে।এর শিরোনাম হলো- Strike at apparel hubs tomorrow. এর টিকার হলো- Payment of July salary on Aug 10.

এএসএ/