পাঁচ দিনে নায়ডুর স্ত্রী-পুত্রের শেয়ারের দাম বেড়েছে হাজার কোটি টাকা

ভারেতর লোকসভা এবং অন্ধ্র প্রদেশ বিধানসভায় ভাল ফল করেছে চন্দ্রবাবু নায়ডুর টিডিপি (তেলুগু দেশম পার্টি)। মঙ্গলবার হয়েছে ফলঘোষণা। এনডিএ জোটের শরীক হিসেবে কেন্দ্রীয় সরকারে মন্ত্রীত্ব পেতে পারেন দলটির তিন/চর জন নেতা। অন্যদিকে অন্ধ্রপ্রদেশে মূখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব নিতে পারেন খোদ চন্দ্রবাবু নায়ডু। তাতে নায়ডুর মালিকানাধীন হেরিটেজ ফুডস নামের কোম্পানির শেয়ারে যেন আগুন লেগেছে। মাত্র ৫ দিনে কোম্পানিটির শেয়ারের দাম ৫৫ শতাংশ বেড়ে গেছে।

হঠাৎ নির্বাচনী পরশ পাথরের ছোঁয়ায় চন্দ্রবাবু নায়ডুর স্ত্রী-পুত্রের ভাগ্যও অনেকটা বদলে গেছে। হেরিটেজ ফুডসের শেয়ারের মূল্য বাড়ায় তাদের সম্পদের মূল্য ৮১৬ কোটি রূপি বেড়ে গেছে, বাংলাদেশী মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় ১ হাজার ১৫০ কোটি টাকা।

খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

গত ৪ জুন, মঙ্গলবার ভারতের লোকসভা ও অন্ধ্র প্রদেশের বিধানসভায় ভোটের ফলঘোষণা হয়েছে। তার আগের দিন, ৩ জুন, হেরিটেজ ফুডসের শেয়ারের দাম ছিল ৪২৪ টাকা। শুক্রবার এই সংস্থার শেয়ারের দাম হয়েছে ৬৬১.২৫ টাকা। তাতে নায়ডুর স্ত্রী ভুবনেশ্বরীর সম্পত্তির পরিমাণ হয়েছে ৫৭৯ কোটি টাকা। ভুবনেশ্বরী ওই সংস্থার অন্যতম কর্তা। এ সময়ে নায়ডুর ছেলের লাভ হয়েছে ২৩৭ কোটি

১৯৯২ সালে এই সংস্থা তৈরি করেছিলেন চন্দ্রবাবু। সংস্থার ওয়েবসাইটে লেখা রয়েছে, ‘‘ভারতে যে সব সংস্থার দ্রুত বৃদ্ধি হচ্ছে, তাদের মধ্যে অন্যতম।’’ দু’ধরনের ব্যবসা রয়েছে সংস্থার, দুধ এবং পুনর্ব্যবহারযোগ্য শক্তির। এখন এই সংস্থা অন্ধ্রপ্রদেশ, তেলঙ্গানা, কেরল, কর্নাটক, তামিলনাড়ু, মহারাষ্ট্র, ওড়িশা, হরিয়ানা, এনসিআর দিল্লি, রাজস্থান, উত্তরাখণ্ড, উত্তরপ্রদেশে দুধ এবং দুগ্ধজাত জিনিস বিক্রি করে।

বোম্বে স্টক এক্সেচেঞ্জের (বিএসই) পরিসংখ্যান বলছে, হেরিটেজ ফুডস সংস্থায় সব থেকে বেশি শেয়ার রয়েছে ভুবনেশ্বরীর। দু’কোটি ২৬ লক্ষ ১১ হাজার ৫২৫ টাকার শেয়ার রয়েছে তাঁর। চন্দ্রবাবুর ছেলে নারা লোকেশ এই সংস্থার এক কোটি ৩৭ হাজার ৪৫৩ টাকার শেয়ারের মালিক। শুক্রবার শেয়ারের দর বৃদ্ধির পর লোকেশের সম্পত্তির পরিমাণ ২৩৭.৮ কোটি টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে।

চলতি লোকসভা ভোটে ১৭টি আসনে লড়েছিল এনডিএর শরিক টিডিপি। তার মধ্যে ১৬টি আসনেই জয়ী হয়েছে তারা। এখন কেন্দ্রে এনডিএর সরকার গড়ার নেপথ্যে অন্যতম শক্তি তারা। অন্ধ্রপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনও একই সঙ্গে হয়েছে। রাজ্যে ১৭৫টি আসনের মধ্যে ১৩৫টিতে জয়ী হয়েছে টিডিপি।

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.