টানেলের মুখে ভয়াবহ সংঘর্ষ: ইসরাইলি সেনা আটকের দাবি হামাসের

গাজা উপত্যকার উত্তরে এক সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন ইসরাইলি সেনাকে হতাহত করার পাশাপাশি অন্তত একজন দখলদার সেনাকে আটক করার খবর দিয়েছে প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস। গত বছরের অক্টোবর মাসে গাজায় ইসরাইলি আগ্রাসন শুরু হওয়ার পর এই প্রথম কোনো দখলদার সেনাকে আটক করার খবর দিল হামাস।

হামাসের সামরিক বাহিনী ইজ্জাদ্দিন আল-কাসসাম ব্রিগেডের মুখপাত্র আবু উবায়দা এই বাহিনীর অফিসিয়াল টেলিগ্রাম চ্যানেলে প্রচারিত এক অডিও বার্তায় এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, শনিবার উত্তর গাজার জাবালিয়া শরণার্থী শিবিরে হামাস যোদ্ধারা একটি ‘জটিল অভিযান’ চালান। তারা ইহুদিবাদী সেনাদেরকে ফাঁদে ফেলে একটি টানেলের মধ্যে নিয়ে যান। সেখানে তাদের ওপর অতর্কিত আক্রমণ চালানো হয় যাতে বেশ কয়েকজন দখলদার সেনা হতাহত হয়।

আবু উবায়দা বলেন, আল-কাসসাম যোদ্ধারা অত্যন্ত কাছে থেকে ইসরাইলি সেনাদের ওপর হামলা চালান। এ সময় দখলদার সেনাদের সাহায্যে ইসরাইলের আরেকটি সেনাদল এগিয়ে এলে বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে তাদেরকেও ঘায়েল করা হয়। ভয়াবহ ওই সংঘর্ষের পর হামাস যোদ্ধারা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে টানেলটির মুখ বন্ধ করে দেন এবং অন্তত একজন ইসরাইলি সেনাকে নিজেদের সঙ্গে নিয়ে যান।

হামাসের পক্ষ থেকে ইসরাইলি সেনা আটক করার খবর প্রচার হলে গাজাবাসী ফিলিস্তিনিদের পাশাপাশি পশ্চিম তীরের ফিলিস্তিনিরাও উল্লাস প্রকাশ করেন। ইয়েমেনের হুথি আনসারুল্লাহ আন্দোলন এক বিবৃতিতে এ ঘটনায় হামাসকে অভিনন্দন জানিয়েছে। অবশ্য ইসরাইল তাদের কোনো সেনার আটক হওয়ার খবর জানায়নি। পার্সটুডে

অর্থসূচক/এএইচআর

  
    

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.