আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চান ৭ অভিনেত্রী

আওয়ামী লীগের সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করা হয়েছে। ফরম সংগ্রহকারীদের মধ্যে আওয়ামী লীগ নেত্রীদের পাশাপাশি ৭ অভিনেত্রীও রয়েছেন।

মঙ্গলবার (৫ ফ্রব্রুয়ারি) সকাল থেকে শুরু হয়েছে এ কার্যক্রম চলবে বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টা পর্যন্ত। মনোনয়ন ফরম প্রথম দিনই বিক্রি হয়েছে ৮১০টি।

মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে রাজধানীর গুলিস্তানের ২৩ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে অবস্থিত আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এসে ফরম সংগ্রহ শুরু করেন তারা। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী অভিনেত্রীদের তালিকায় রয়েছেন, অপু বিশ্বাস, নিপুণ আক্তার, সৈয়দা কামরুন নাহার শাহনূর, ঊর্মিলা শ্রাবন্তী কর, সোহানা সাবা, তানভিন সুইটি, মেহের আফরোজ শাওন। তারা সবাই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়ে আশাবাদী।

সকালে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের পর জমা দিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে অভিনেত্রী অপু বিশ্বাস বলেন, আমি যেহেতু একজন অভিনেত্রী, আমি সবসময় জনগণের সঙ্গে ছিলাম। আমি বরাবরই নারীদের উন্নয়ন করতে চাই। সেই জায়গা থেকেই যদি আমাকে সুযোগ করে দেওয়া হয় তাহলে আমি মানুষের জন্য কাজ করব। আপনারা সবাই দোয়া করবেন, আশীর্বাদ করবেন আমি যেন লক্ষ্য পূরণ করতে পারি।

মনোনয়নপত্র সংগ্রহ শেষে অভিনেত্রী তানভিন সুইটি বলেন, দলের একজন ক্ষুদ্র কর্মী হিসেবে আমার যতটুকু করার ততটুকুই করছি। আমি সাধারণ মানুষের জন্য আরও বেশি কিছু করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে মনোনয়ন চাই।

মনোনয়ন পেলে কীভাবে মানুষের সেবা করবেন এমন প্রশ্নের জবাবে অভিনেত্রী সুহানা সাবা বলেন, আমরা নতুন জেনারেশন, দেশ-বিদেশ ঘুরে বেড়াই। আমরা যা দেখি দেশকে ও দেশের মানুষকে সেভাবে দেখতে চাই। সাধারণ মানুষের মতোই আমি হাঁটাচলা করি। পাঁচ টাকার জিনিস আমি ফুটপাত থেকে কিনি। সেই অভিজ্ঞতাও আমার আছে।

সাবা বলেন, আমার বাবা একজন মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। উনি মাত্র ১৩ বছর বয়সে মুক্তিযুদ্ধ করেছেন। তিনি শুধু আওয়ামী লীগপন্থিই ছিলেন না, তিনি দেশপ্রেমিকও ছিলেন। দেশের কথা ভাবলে আওয়ামী লীগের কথা ভাবতে হবে। এটা ছাড়া অন্য কোনো উপায় নেই। আমরা খুবই ভাগ্যবান যে টানা ১৫ বছর ধরে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আছে, ইনশাল্লাহ আরও পাঁচ বছরও থাকবে। সেজন্য আমি অবশ্যই চাই আওয়ামী লীগ থেকে প্রার্থী হতে।

ঊর্মিলা শ্রাবন্তী কর বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় জীবন থেকেই আমি আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে আমি জড়িত। তাই আমি অনেক আশাবাদী। যেহেতু আমার রাজনীতির ক্যারিয়ার অনেক লম্বা। এলাকাসহ সর্বস্তরের মানুষের সঙ্গে কাজ করেছি। মনোনয়ন পেলে কাজের পরিধি আরও লম্বা হবে।

অভিনেত্রী সৈয়দা কামরুন নাহার শাহনূর বলেন, আমি মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে জড়িত। বিরোধী দলের আগুন সন্ত্রাসের বিরুদ্ধেও সক্রিয়ভাবে মাঠে ছিলাম। আমি নিজেও সামাজিক কাজের সঙ্গে যুক্ত। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে মনোনয়ন দিলে আমি তার কথা অনুসারে কাজ করতে চাই।

অর্থসূচক/ এইচএআই

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.