আলোচনা মানে সময় নষ্ট: নাসিম

0
47
Mohammod nasim
ফাইল ছবি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম
Mohammod nasim
ফাইল ছবি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম

জাতীয় নির্বাচনের পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা মানে সময় নষ্ট বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মো. নাসিম।

রোববার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ গণ-আজাদী লীগের সভাপতি আব্দুস সামাদ’র স্মরণসভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

নাসিম আরও বলেন, আলোচনায় সময় নষ্ট করে লাভ নেই। বিদ্যমান পদ্ধতিতেই আগামি নির্বাচন হবে। তিনি বলেন, বিশ্বের অন্যান্য গণতান্ত্রিক দেশের মতোই ২০১৯ সালে শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন হবে। তাই বিএনপি নেত্রীকে বলতে চাই আন্দোলনের হুমকি বাদ দিয়ে নির্বাচনের জন্য তৈরি হোন।

ঈদের পর বিএনপির আন্দোলন প্রসঙ্গে নাসিম বলেন, যে ঈদের পর বিএনপি আন্দোলন করবে বলে হুমকি দিচ্ছে, সেই ঈদ বাংলাদেশে কখনোই আসবে না।

৫ জানুয়ারির নির্বাচনের পর বিএনপির নেতারা দেউলিয়া হয়ে গেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

সরকার আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় কাজ করছে উল্লেখ করে সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নাসিম বলেন, শেখ হাসিনা কাউকে ছাড় দেয়নি। এমনকি একজন মন্ত্রীর জামাইকেও ছাড় দেয়নি।

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়ার আমলেই বাংলাদেশ তালপট্টির মালিকানা হারিয়েছে- এতথ্য জানিয়ে তিনি বলেন, জিয়ার আমলে তালপট্টির অস্তিত্ব দেখা দিয়েছে আবার সে সময়ই সেটা হারিয়ে গেছে। সমুদ্রে বাংলাদেশের অধিকার প্রতিষ্ঠায় বিএনপি কখনই আদালতে যায়নি। শুধু ভারত বিরোধী স্লোগান দিয়েছে। শেখ হাসিনা তার কূটনৈতিক শক্তিতে মায়ানমার ও ভারতের সাথে আইনি লড়াইয়ে সমুদ্র বিজয় করেছে।

আলোচনা সভায় বেসামরিক বিমান ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, জিয়াউর রহমানও বলেছিলেন তালপট্টির কোনো অস্তিত্ব নেই। কিন্তু বর্তমান সরকার ভারতের সাথে আইনি লড়াইয়ে সমুদ্র জয় করার পর তার দলের নেতারাই এখন তালপট্টির অস্তিত্ব খোঁজেন।

ব্যারিস্টার এ এস এম বারির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, সাম্যবাদী দলের সভাপতি দিলীপ বড়ুয়া, কমিউনিস্ট কেন্দ্র’র আহ্বায়ক ওয়াজেদুর ইসলাম খান, ন্যাপের সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক, বাসদ’র আহ্বায়ক রেজাউর রশীদ খান প্রমুখ।

জেইউ/এমআই