সৌদিতে আরও ৩০৭ অবৈধ অভিবাসী গ্রেপ্তার

0
52
saudi-Police-raid
সৌদি সরকারের ধরপাকড় অভিযানে গ্রেপ্তারকৃত তে অবৈধ অভিবাসী শ্রমিকদের একাংশ- ছবি আরব নিউজ
saudi-Police-raid
সৌদি সরকারের ধরপাকড় অভিযানে গ্রেপ্তার হওয়া অবৈধ অভিবাসী শ্রমিকদের একাংশ- ছবি আরব নিউজ

সৌদি আরবে আরও ৩০৭ অবৈধ অভিবাসীকে গ্রেপ্তার করেছে রিয়াদ পুলিশ। এদের মধ্যে ১৩ জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা রয়েছে।

রিয়াদের গভর্নর প্রিন্স তুর্কি বিন আব্দুল্লাহ বিন আজিজের নির্দেশে পরিচালিত এক চিরুনী অভিযানে তাদের আটক করা হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, মঙ্গলবার মানফুয়া, হাই আল ওয়াজারা ও বাথা সিটি সেন্টার এলাকায় ২৪ ঘণ্টার বিশেষ অভিযান চালিয়ে এসব অভিবাসী শ্রমিককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এ নিয়ে এই দফায় মোট ২ হাজার ৫০৭ জন অবৈধ অভিবাসীকে আটক করেছে দেশটির পুলিশ।

রিয়াদ পুলিশের বরাত দিয়ে রোববার সৌদি আরবের প্রভাবশালী পত্রিকা আরব নিউজ জানিয়েছ, গ্রেপ্তার হওয়া অভিবাসীদের বিরুদ্ধে অবৈধ অভিবাসন, চাকরি থেকে পলায়ন এবং ভিসা ছাড়াই অবৈধভাবে কাজের খোঁজ করার অভিযোগ রয়েছে। এরা সবাই বিভিন্ন দেশের নাগরিক।

মেজর জেনারেল সৌদ আল হিলালের প্রত্যক্ষ তত্বাবধানে এই অভিযান পরিচালিত হয়। অভিযুক্তরা যাতে পালিয়ে যেতে না পারেন সে জন্য অভিযান পরিচালনার সময় পুরো এলাকা কর্ডন করে রাখা হয়।

অভিযানে হারা ও বাথা এলাকা থেকে ৪৫ জন সবজি বিক্রেতাকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে; যারা হজ্ব ও ওমরা পালনের ভিসা নিয়ে সৌদিতে এসেছিলেন। কিন্তু ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও দেশটিতে অবস্থান করছিলেন।

পুলিশ জানিয়েছে, গ্রেপ্তার হওয়া অভিবাসীদের বিরুদ্ধে তদন্ত হবে। অপরাধের ধরণ অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে জরিমানা, শাস্তি ও প্রত্যাবাসনেরও ব্যবস্থা করা হবে।

এর আগে আরবনিউজের আরেক প্রতিবেদনে জানানো হয়, চলতি মাসে মদিনা, হেইল ও বাহা এলাকায় অভিযান চালিয়ে একই অভিযোগে ২ হাজার ২০০ অবৈধ অভিবাসী শ্রমিককে গ্রেপ্তার করে সৌদি পুলিশ।

প্রসঙ্গত, সৌদি আরব বিশ্বের সবচেয়ে বড় তেল রপ্তানীকারক দেশ এবং এখানে স্বর্ণের খনিও রয়েছে। ফলে এশিয়া ও আরব বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে কয়েক কোটি মানুষ কাজের খোঁজে এখানে আসেন। এখানে এসে অধিকাংশই শ্রমিক,ড্রাইভার,কুলি ও গৃহকর্মীর মতো সাধারণ কাজে যুক্ত হন।

উল্লেখ, ১ নভেম্বর ২০১৩ বিশেষ ক্ষমার মেয়াদ শেষ হওয়ার প্রেক্ষিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সকল অবৈধ অভিবাসীদের অভিবাসন ও কাজের অনুমতি সংক্রান্ত বৈধ কাগজপত্র সংগ্রহের জন্য নির্দেশ দিয়েছিল। যারা এই সময়ের মধ্যে বৈধ কাগজপত্র সংগ্রহে ব্যর্থ হয়েছে তাদের দেশ ত্যাগ করার নির্দেশ দেয় মন্ত্রণালয়।

জিএম/এস রহমান/