প্রাধান্য পেয়েছে বিশ্বকাপ ফাইনাল

0
48
enewspaprer

enewspaprerরোববার বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনাল খেলা। রাত ১ টায় মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা বনাম জার্মানি। তাই আজ প্রকাশিত দেশের প্রায় সব পত্রিকা বিশ্বকাপ ফাইনালের খবর দিয়েই লিড ও দ্বিতীয় লিড নিউজ করেছে। কোনো কোনো পত্রিকা আবার প্রথম পৃষ্ঠার পুরোটাতেই খেলার নিউজকে প্রাধান্য দিয়েছে।

আর্জেন্টিনা এবার ফাইনালে উঠল ২৪ বছর পর। সর্বশেষ বিশ্বকাপ জিতেছে ২৮ বছর আগে। জার্মানির অপেক্ষাও কিন্তু কম দিনের নয়। ১৯৯০ সালে ফাইনালে আর্জেন্টিনাকে হারিয়েই সর্বশেষ বিশ্বকাপ জয় তাদের।

বিশ্বকাপে দেশ দুটি তৃতীয়বারের মতো আজ ফাইনালে মুখোমুখি হচ্ছে। প্রথমবার ১৯৮৬ সালে, মেক্সিকো বিশ্বকাপে; আজতেকা স্টেডিয়ামে সেদিন লুই ব্রাউন ও হোর্হে ভালদানোর গোল শোধ করে পশ্চিম জার্মানিকে সমতায় ফিরিয়েছিলেন রুমেনিগে ও রুডি ভোলারের গোল। জয়সূচক গোল করে কাপটা আর্জেন্টিনার করে নেন বুরুচাগা। চার বছর পর রোমের ফাইনালে আবার মুখোমুখি পশ্চিম জার্মানি ও আর্জেন্টিনা। এবার রেফারি কোদেসালের বিতর্কিত সিদ্ধান্তে পেনাল্টি থেকে করা ব্রেহমার গোলে শিরোপা পশ্চিম জার্মানির।

এরপর কেটে গেছে দুই যুগ, ৯০’র পর এবারই প্রথম কোয়ার্টার ফাইনালের গণ্ডি পেরিয়েছে আর্জেন্টিনা আর পর পর দুইবার তৃতীয় হয়ে এবার ফাইনালে জার্মানি। দেখা যাক, রাত পোহালেই জয়ের হাসি কে হাসে- আর্জেন্টিনা নাকি জার্মানি।

প্রথম আলো প্রথম পৃষ্টার সবগুলো নিউজই খেলার উপর করেছে। এর লিড নিউজের শিরোনাম হলো-‘শেষ দৃশ্যের জন্য অপেক্ষা’। পত্রিকাটি দ্বিতীয় লিড নিউজের শিরোনাম হলো- ‘মেসির হাতেই উঠুক কাপ’।

কালের কণ্ঠের লিড নিউজের শিরোনাম হলো- ‘আর্জেন্টিনা না জার্মানি’। পত্রিকাটি দ্বিতীয় লিড নিউজ করেছে- ‘জিতলে মেসিকে বরণ করব লাল গালিচায়’।

সমকাল লিড নিউজ করেছে- ‘আনন্দ বেদনার মহাকাব্য’। পত্রিকাটির দ্বিতীয় লিড নিউজের শিরোনাম হলো- ‘ইতিহাসের হাতছানি জার্মানির সামনে’।

দৈনিক ইত্তেফাকের লিড নিউজের শিরোনাম হলো- ‘আর্জেন্টিনা- জামার্নি: কে সেরা’। এর টিকার হলো- ‘ব্রাজিল বিশ্বকাপের ফাইনাল আজ’।

ইংরেজি দৈনিক দ্য ডেইলি স্টারের লিড নিউজের শিরোনাম হলো- ‘Continents collide’. নিউজের সাথে পত্রিকাটি ক্যাশসনসহ পাঁচ কলামের একটি ছবিও দিয়েছে। এর উপ-শিরোনাম হলো – ‘Germany vs Argentina Final Tonight’.
দ্য ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেস লিড নিউজ করেছে- ‘Muggers becoming active ahead of Eid’. এর টিকার হলো- ‘Tactics changed to outsmart law-enforcers’.

এএসএ/